১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘শীঘ্রই দ্বিতীয় আর্থিক প্যাকেজ আনছে মোদি সরকার’, জানালেন মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 3, 2020 9:38 am|    Updated: May 3, 2020 9:38 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউনের ধাক্কায় বেলাইন অর্থনীতিকে সঠিক রাস্তায় ফেরাতে ইতিমধ্যেই ১ লক্ষ ৭০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে মোদি সরকার। ভারতের মতো বৃহৎ জনসংখ্যার দেশে তা সামান্যই। তাছাড়া সেই প্যাকেজ ঘোষণার পর দু’বার বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ। কিন্তু নতুন করে প্যাকেজ আর ঘোষিত হয়নি। দেশের একটা বড় অংশের মানুষ এখন পেটের দায়ে অপেক্ষা করছে সরকারের আর্থিক প্যাকেজের। সেই অপেক্ষার অবসান ঘটতে চলেছে শীঘ্রই। দ্বিতীয় দফার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণার প্রস্তুতি মোটামুটি সেরে ফেলেছে কেন্দ্র। দ্রুত তা ঘোষিত হবে, এমনটাই জানাচ্ছেন কেন্দ্রের মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা কৃষ্ণমূর্তি ভি সুব্রমনিয়ন (Krishnamurthy V Subramanian)।

মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা (Chief Economic Adviser) বলছেন, “দ্বিতীয় আর্থিক প্যাকেজ খুব শীঘ্রই প্রত্যাশিত। এবং সেটারই কাজ চলছে। সরকার সব সেক্টরকেই পরিকল্পিতভাবে এর আওতায় আনতে চাইছে যাতে সীমিত ক্ষমতাকেই পুরোপুরি ব্যবহার করা যায়। তবে প্রাথমিক লক্ষ্য থাকবে গ্রামীণ অর্থনীতি, অসংগঠিত ক্ষেত্র এবং ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প এবং সেইসব বড় শিল্পক্ষেত্র যা সরাসরি মানুষের জীবনে প্রভাব ফেলে। আমরা চায় মানুষের টাকা যাতে সঠিক এবং পরিকল্পিতভাবে খরচ হয়, তা নিশ্চিত করতে।” উল্লেখ্য, বেশ কিছুদিন ধরেই মোদি সরকারের দ্বিতীয় আর্থিক প্যাকেজ নিয়ে জল্পনা চলছে। অনেকে মনে করছেন, এবারের প্যাকেজ আগেরবারের থেকে বড় হতে পারে। কারণ, আমেরিকা, ব্রিটেনের মতো দেশ নিজেদের জিডিপির একটা বড় অংশ আর্থিক প্যাকেজে খরচ করছে। মুখ্য আর্থিক উপদেষ্টা অবশ্য ততটা আশাব্যঞ্জক কিছু শোনালেন না। তিনি বলছেন, ‘ওই দেশগুলিতে ৪০ শতাংশ লোক সরাসরি কর দেয়। আর আমাদের সেটা ১০ শতাংশেরও কম। তাই অতটা সম্ভব না। তবে এটাই শেষ প্যাকেজ নয়।’

[আরও পড়ুন: লকডাউন বাড়লেও রেড জোনে খুলতে পারে মদের দোকান! কী বলছে কেন্দ্রীয় নির্দেশিকা?]

উল্লেখ্য, কৃষি, ক্ষুদ্রশিল্পকে চাঙ্গা করে সেই প্যাকেজ নিয়ে আলোচনা করতেই শনিবার বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দফায় দফায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক সারেন তিনি। সূত্রের খবর, এই বৈঠকগুলিতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পকে চাঙ্গা করার প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এই মুহূর্তে ভারতের অর্থনীতিকে দৃঢ় করতে কী কী পদক্ষেপ নিতে হবে সেই ব্যাপারে একটি নকশা অর্থমন্ত্রকের তরফে প্রধানমন্ত্রীর সামনে তুলে ধরা হয়। অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক করেন মোদী। সেখানে লকডাউনের ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশাসনিক স্তরে একাধিক বিষয়ে আলোচনা হয়েছে বলে খবর

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement