৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কাশীর ঘাটে এবার ওয়াই-ফাই, ধূমপানে জরিমানা!

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 16, 2016 5:03 pm|    Updated: June 16, 2016 5:03 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঘাটে ধোঁয়া থাকতেই পারে। কিন্তু, তা প্রদীপের মঙ্গলশিখাজাত! অথবা, চিতার!
কিন্তু, তামাকের নয়!
কড়া নির্দেশ জারি করেছে বারাণসী পুরসভা, এবার থেকে ঘাটে ধূমপান করলে ২০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে।
পুরসভার একটি বৈঠকে সম্প্রতি এই প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কাশীর মেয়র রামগোপাল মোহলি, জেলাশাসক ভি কে আনন্দ এবং কিছু এনজিও যাদের অধীনে কাশীর কিছু ঘাট রয়েছে। মেয়র জানিয়েছেন, ধূমপান বন্ধ করা ছাড়া ঘাটকে দূষণমুক্ত রাখতে আরও কিছু বন্দোবস্ত নেওয়া হবে। যেমন, প্রত্যেক ঘাটে রাখা হবে বড় বড় কলস। গঙ্গায় ভাসিয়ে দেওয়া ফুল-মালা তুলে জড়ো করা হবে সেই সব কলসে।
ঘাটের উন্নতিকল্পে আর কী কী ব্যবস্থা নিচ্ছে কাশী পুরসভা?

1
পুরসভার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, যে বড় বড় ছাতা এক সময়ে ছিল কাশীর ঘাটের অন্যতম পরিচিতি, সেগুলো ফিরিয়ে আনা হবে। বর্তমানে সেই সব ছাতা খুব কম ঘাটেই দেখতে পাওয়া যায়। পুরসভার উদ্যোগে এবার কাশীর ঘাট সেজে উঠবে পর্যাপ্ত ছাতায়। এছাড়া প্রতি ঘাটে বসবে জলের এটিএম, ডাস্টবিন, ওয়াই-ফাই এবং মিউজিক সিস্টেম। থাকবে সিসিটিভির নজরদারিও!
তবে, কাশীর ঘাটগুলির মধ্যে বিশেষ করে নজর দেওয়া হচ্ছে দশাশ্বমেধ ঘাটের সৌন্দর্যায়নে। ঠিক করা হয়েছে, ঘাটের সিঁড়িগুলি মেরামত করা হবে। ঘাটের দেওয়াল রাঙিয়ে তোলা হবে এনামেল কালারে।
এছাড়া, সব ঘাটেই নৌকাবিহারের জন্য আলাদা জেটি করার কথা ভাবছে পুরসভা।
মেয়র জানিয়েছেন, এই সব উদ্যোগগুলোর কথা মাথায় রেখে আপাতত একটি পর্যবেক্ষক দল তৈরি করা হচ্ছে। তারা ঘাটে ঘাটে ঘুরে প্রথমে পরিস্থিতি দেখবে এবং তার রিপোর্ট জমা করবে। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই শুরু হবে দ্রুত সৌন্দর্যায়নের কাজ।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement