২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

সামাজিক দূরত্বকে বুড়ো আঙুল, মধ্যপ্রদেশে অবাধে চলল সাধুদের ঘিরে অনুষ্ঠান

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: May 13, 2020 1:52 pm|    Updated: May 13, 2020 1:52 pm

Social distancing rules flouted in MP, people celebrating monk arrival

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মঙ্গলবার মধ্যপ্রদেশে ধরা পড়ল দায়িত্বজ্ঞানহীনতার নয়া চিত্র। সামাজিক দূরত্বকে শিকেয় তুলে রাস্তায় নেমেছেন জৈন সাধুরা। তাঁদের দেখতে লকডাউনের নিয়মকে উপেক্ষা করে ভিড় জমিয়েছেন হাজার হাজার মানুষ। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ছবি দেখে হতবাক সকলে।

মহারাষ্ট্রের পর দেশে করোনার সংক্রমণের সবথেকে বেশি প্রভাব ফেলেছে মধ্যপ্রদেশে। মাত্র ২৪ ঘণ্টায় এই রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন সাড়ে তিন হাজারের বেশি মানুষ। সেখানে লকডাউনের নিয়মকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে অবাধে রাস্তায় বের হচ্ছেন মানুষ। পালন করা হচ্ছে জৈন সাধুদের ফিরে আসার উৎসব। প্রতিবার জাতির উদ্দেশ্য ভাষণ দেওয়ার সময় সামাজিক দূরত্ব বজায়া রাখার কথা দেশবাসীকে বার বার স্মরণ করিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু সেই কথায়ে অগ্রাহ্য করে চলছে উৎসবের ঘনঘটা। মধ্যপ্রদেশের সাগর জেলার এই দায়িত্বজ্ঞানহীনতার ছবি ধরা পড়েছে বিভিন্ন সংবাদ সংস্থায়। যেখানে দেখা যাচ্ছে দলবেঁধে হাজার হাজার মানুষ ঘিরে রয়েছেন প্রমনসাগর ( Pramansagar) জৈন সাধুদের। সেখানে না আছে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার খেয়াল, না আছে কোনও সংক্রমণের ভয়। ঘটনার ছবি প্রকাশ্যে আসতেই নিন্দার ঝড় বয়ে গেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রশ্ন উঠেছে পুলিশের ভূমিকা নিয়েও। ফলে নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন সাগর জেলার পুলিশ আধিকারিক প্রবীন ভুরিয়া। তিনি জানান, “যারা লকডাউনের নিয়ম উপেক্ষা করে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন তাঁরা ১৪৪ ধারা লঙ্ঘনের সমান দোষ করেছেন। অপরাধীদের খুঁজে বের করা হবে।”

এর আগেই হরিয়ানার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল ভিজ ঘোষণা করেন যে, লকডাউনের বিধিনিষেধ ভঙ্গকরাকে অপরাধ বলে গণ্য করা হবে।

[আরও পড়ুন:গরিব, মধ্যবিত্ত নাকি ধনী? কারা উপকৃত হবেন ২০ লক্ষ কোটির আর্থিক প্যাকেজে?]

তবে সাগর জেলার এই ঘটনা মধ্যপ্রদেশ সরকারের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় যে আদপে কোথায় রয়েছে গলদ। এই ঘটনার পর পুলিশের নজরদারি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রীকে রাজ্যে কৃষি, শিল্প, গণপরিবহনের কিছু বিষয়ে ছাড় দেওয়ার অনুরোধ করেন। তবে প্রশ্ন হল লকডাউন বহাল থাকাকালীনই নিয়মকে অগ্রাহ্য করলে ছাড় দেওয়ার পর রাজ্যের কী পরিস্থিতি হবে?

[আরও পড়ুন:অভিনব উদ্যোগ, করোনা প্রতিরোধক গ্রাম গড়ছে পুরুলিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে