BREAKING NEWS

১০  আশ্বিন  ১৪২৯  শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির জেরে ১০-১৫ শতাংশ বাড়াতেই হবে বিমানভাড়া, দাবি স্পাইসজেট কর্তার

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: June 16, 2022 5:04 pm|    Updated: June 16, 2022 9:37 pm

SpiceJet CMD Says, Minimum 10-15% increase in airfares must due to ATF price increase | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যে হারে উড়ানের জ্বালানির (ATF) দাম বাড়ছে, অন্যদিকে ডলারের তুলনায় টাকার দাম পড়েই চলেছে, তার ফলে এবার বিমানের টিকিটের দাম (Air Fires) বাড়াতেই হবে, জানিয়ে দিলেন বিমান সংস্থা স্পাইস জেটের (Spice Jet) ম্যানেজিং ডিরেক্টর অজয় সিং (Ajay Singh)। তাঁর মতে, বর্তমান পরিস্থিতিতে উড়ানের ভাড়া বাড়াতে হবে কমপক্ষে ১০-১৫ শতাংশ।

কোভিডের (COVID) কারণে দু’ মাসের লকডাউনের পর ২০২০ সালের ২৫ মে দূরত্ব অনুযায়ী বিমান ভাড়ার নিয়ম চালু করে কেন্দ্র। বর্তমানে ৪০ মিনিট ও তার কম সময়ের দূরত্বের ক্ষেত্রে পরিষেবা অনুযায়ী বিমান যাত্রায় সবচেয়ে কম ভাড়া ২৯০০ টাকা, সবচেয়ে বেশি ভাড়া ৮৮০০ টাকা (দুই ভাড়া জিএসটি ছাড়া)। এই ন্যূনতম মূল্য ধার্য করা হয়েছিল কোভিড পরিস্থিতিতে বিমান সংস্থার ক্ষতি যাতে না হয়, সে কথা ভেবে। অন্যদিকে ঊর্ধ্বমূল্য বেঁধে দেওয়া হয় যাত্রীর অতিরিক্ত খরচ বাঁচাতে। কিন্তু রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের (Ukraine-Russia War) কারণে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি থেকেই ঊর্ধ্বমুখী জ্বালানি তেলের দাম। ফলে বিমানের ভাড়া বাড়ানো ছাড়া উপায় নেই বলেই মনে করছে বিমান সংস্থাগুলি।

[আরও পড়ুন: দলে কমছে গুরুত্ব? ত্রিপুরা উপনির্বাচনে বিজেপির তারকা প্রচারকের তালিকায় নেই শুভেন্দু]

বৃহস্পতিবার অজয় সিং জানিয়েছেন, ২০২১ সালের জুনের পরে উড়ানের জ্বালানির (ATF) দাম বেড়েছে ১২০ শতাংশ। অজয়ের বক্তব্য, এভাবে জ্বালানির দাম বাড়ায় বিমান সংস্থাগুলি খরচ সামলাতে পারছে না। তিনি বলেন, এখন যা অবস্থা তাতে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের উড়ানের জ্বালানির করে ছাড় দেওয়া।

স্পাইসজেটের ম্যানেজিং ডিরেক্টর আরও জানিয়েছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে তার বিমান সংস্থার অপারেশনাল খরচ বেড়েছে প্রায় ৫০ শতাংশ। অন্যদিকে টাকার দাম পড়ে যাওয়ায় বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিমান সংস্থাগুলির খরচ সামাল দেওয়া কঠিন হচ্ছে। এই অবস্থায় বিমান ভাড়া ১০-১৫ শতাংশ বাড়াতেই হবে বলে মনে করেন তিনি।

[আরও পড়ুন: রাহুলকে ইডির জেরার প্রতিবাদ করায় ‘পুলিশি জুলুম’, লোকসভার স্পিকারের কাছে অভিযোগ কংগ্রেসের]

প্রসঙ্গত, শেয়ার মার্কেটের বর্তমান খারাপ পরিস্থিতি সরাসরি প্রভাব ফেলছে ভারতীয় মুদ্রা বাজারে। যার জন্য বুধবার রেকর্ড পতন হয়েছে ভারতীয় টাকার (Indian Rupee) দামে। মঙ্গলবারের তুলনায় আরও ১৮ পয়সা পড়েছে ভারতীয় মুদ্রার দাম। মার্কিন ডলারের নিরিখে ভারতীয় টাকার দাম দাঁড়িয়েছে ৭৮ টাকা ২২ পয়সা। অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় ১ মার্কিন ডলারের দাম ৭৮ টাকা ২২ পয়সা। যা সর্বকালীন রেকর্ড।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে