×

৯ চৈত্র  ১৪২৫  সোমবার ২৫ মার্চ ২০১৯   |   শুভ দোলযাত্রা।

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গুজরাটে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে ‘স্ট্যাচু অফ ইউনিটি’। ‘সর্দার প্যাটেল’ নাকি নয়া মাত্র যোগ করেছেন পর্যটন শিল্পে। তাঁর দৌলতেই আরও ফুলেফেঁপে উঠছে রাজ্যের কোষাগার। তবে মুদ্রার একপিঠে সমস্তটাই ‘অল ইজ ওয়েল’ হলেও অপরদিক বলছে সম্পূর্ণ ভিন্ন কাহিনি। অভিযোগ, বিগত তিন মাস ধরে বেতন পাচ্ছেন না স্ট্যাচু অফ ইউনিটি-র রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকা কর্মীরা। উপায় না পেয়ে শেষমেশ ধরনায় বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাঁরা।

[নজির গড়লেন আজিম প্রেমজি, সেবামূলক কাজে দান করলেন ৫২ হাজার কোটি টাকা]

জানা গিয়েছে, স্ট্যাচু অফ ইউনিটি-র রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে একটি বেসরকারি সংস্থা। নিরাপত্তারক্ষী, মালি, লিফটম্যান, টিকিট চেকার থেকে শুরু করে অন্যান্য কাজের জন্য কর্মী জোগান দেয় ‘আপডেটার সার্ভিসেস লিমিটেড’ নামের সংস্থাটি। তাদের এই কাজের বরাত দিয়েছে রাজ্য সরকার। অভিযোগ, বিগত তিন মাস ধরে কর্মীদের বেতন মেটাচ্ছে না সংস্থাটি। ফলে চরম অভাবের মুখে পড়তে হচ্ছে তাঁদের। কর্তৃপক্ষের কছে এই বিষয়ে একাধিকবার সওয়াল করলেও ফল মেলেনি। ফলে বাধ্য হয়ে ধরনায় বসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কর্মীরা। এক নিরাপত্তারক্ষী বলেন, “৮ থেকে ১০ হাজার টাকা বেতন পাই আমরা। তাতে কোনওমতে সংসার চলে। এবারে সেটাও না পেলে পরিবারের মুখে খাবার তুলে দেব কী করে। “

এদিকে, বেতন না পাওয়া কর্মচারীদের পাশে দাঁড়িয়েছে বাম শ্রমিক সংগঠন সিটু। গুজরাটের সিটু নেতা অরুণ মেহতা বলেন, “একটি বেসরকারি সংস্থার হয়ে কাজ করছেন কর্মীরা। স্ট্যাচুটি দেখভাল করার জন্য সংস্থাটিতে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের অর্থ দেওয়া হয়। কিন্তু তারা কর্মীদের বেতন মেটাচ্ছে না। বেশিরভাগ কর্মচারীই চুক্তিভিত্তিক। ফলে সেভাবে প্রতিবাদও করতে পারছে না তাঁরা। তবে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য মানববন্ধন তৈরি করেছিল কর্মীরা। একদিকে সরকার বলছে স্ট্যাচুটি থেকে আয় হচ্ছে, অন্যদিকে কর্মীদের বেতন দেওয়া হচ্ছে না। সরকারের এ কেমন দ্বিচারিতা। ”     

[লাভের গুড় খাচ্ছে পিঁপড়ে! ত্রাণকর্মীদের হোটেল বিলেই ফাঁকা রোহিঙ্গা তহবিল]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং