Advertisement
Advertisement

ভূতের মুখে রাম নাম! অল্পবয়সিদের প্রেমের অধিকার নিয়ে সওয়াল তোগাড়িয়ার

ভ্যালেনটানস ডে উপলক্ষে বার্তা বিশ্ব হিন্দু পরিষদ সভাপতির।

Taking U-turn Praveen Togadia bats for ‘Love’
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:February 12, 2018 5:19 pm
  • Updated:February 12, 2018 6:56 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চেনা ছবিটা যেন কিছুতেই মেলানো যাচ্ছে না। এযাবৎ ভ্যালেনটাইনস ডে এলে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কর্মীদের বরাবর বিরোধিতাই করতে দেখা গিয়েছে। এবছরও তার ব্যতিক্রম নেই। বিরোধিতার সুর চড়িয়েছেন কর্মীরা। অথচ খোদ কার্যনির্বাহী সভাপতির মুখে উলটো সুর। স্বয়ং প্রবীণ তোগাড়িয়াই এবার অল্পবয়সিদের প্রেমের অধিকার নিয়ে সওয়াল করলেন।

[  ‘ভ্যালেন্টাইনস ডে’ উপলক্ষ্যে আকাশছোঁয়া দাম, গোলাপ বিকোচ্ছে ১০০০ টাকায় ]

Advertisement

দিনকয়েক আগেই রাজনীতিতে উলটো সুর শোনা গিয়েছিল। যে গেরুয়া শিবির আর বিশ্ব হিন্দু পরিষদ একেবারে ওতপ্রোতভাবে জড়িত, সেখানেই বিচ্ছেদের বিদ্যুৎ দেখা গিয়েছিল। বেশ কয়েক ঘণ্টা নিখোঁজ ছিলেন তোগাড়িয়া। পরে জানান, তাঁকে হত্যার চক্রান্ত চলছে। রীতিমতো শোরগোল পড়ে যায় তাঁর মন্তব্যে। আবার সময়ের সঙ্গে সে আলোড়ন থিতিয়েও যায়। তবে তোগাড়িয়ার আদর্শেও যে বদল এসেছে এবার তার প্রমাণ মিলল। এতদিন যে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ ভ্যানেটনাইনস ডে পালনের বিরোধিতা করে এসেছে এবং করছেও, সেই সংগঠনের প্রধান হয়েই তাঁর একেবারে উলটো মত। তোগাড়িয়া জানান, ‘প্রেম না করলে বিয়ে হবে কী করে? আর তা না হলে সৃষ্টি চলবে কী করে? প্রেমিক-প্রেমিকাদের ভালবাসার অধিকার আছে। এবং সে অধিকার পাওয়া উচিত তাঁদের।’

Advertisement

মহা শিবরাত্রিতে জঙ্গি হানার শঙ্কা, ১২টি জ্যোতির্লিঙ্গকে ঘিরে চূড়ান্ত সতর্কতা ]

কিন্তু তার সংগঠনই তো গত কয়েক বছর ধরে এর বিরোধিতা করে এসেছে। এবং এ বছরও করছে। তাহলে তাঁর এই মত কেন? তোগাড়িয়া স্পষ্ট করে জানান, ‘আমি আমার বার্তা দিয়ে দিয়েছি। আমি বিশ্বাস করি, আমাদের কন্যা বা বোনেরও ভালবাসার সমান অধিকার আছে।’ এই উদার আকাশ কোনওদিনই ছিল না বিশ্ব হিন্দু পরিষদের কার্যক্রমে বলে নালিশ অনেকের। ফলে তোগাড়িয়ার এই মন্তব্যে অনেকেই চমকেছেন। প্রশ্ন উঠছে, তবে কি রাজনৈতিক মতাদর্শ বদলের ইঙ্গিতই ধরা আছে তাঁর এই মন্তব্যে? এ নিয়ে অবশ্য তোগাড়িয়া নিশ্চুপ। বরং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে বিষ উগরে দিয়েছেন তিনি। আর দেশের ভালর জন্য তাঁর বার্তা, সেনার উচিত এখনই প্রস্তুতি নিয়ে পাকিস্তান আক্রমণ করা। পাথর নিক্ষেপকারীদের বিরুদ্ধে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য মুফতি সরকারেরও সমালোচনা করেছেন তিনি। তবে সেই সঙ্গে নীতিপুলিশির বিরোধিতা করে তিনি যে বার্তা দিয়েছেন, তা যে সদর্থক তা বলার অপেক্ষা রাখে না। বিশেষত এই অ্যান্টি রোমিও স্কোয়াডের দাপটের মুখে তোগাড়িয়া যেন একেবারে উলটো কথাই শোনালেন। কিন্তু প্রশ্ন হল, দীর্ঘদিনের ট্র্যাডিশন ভেঙে তাঁর কর্মীরা এ কথা শুনবেন তো? আগত ভ্যালেনটাইনস ডে-তেই তার জবাব মিলবে। তবে সংগঠনের মধ্যেই কি ক্রমশ গুরুত্ব হারাচ্ছেন তোগাড়িয়া? তাঁর এই মন্তব্যে রাজনৈতিক মহলে সে প্রশ্নও উঠে গেল।

[  দেশের জওয়ানদের অপমান করেছেন মোহন ভাগবত, তোপ রাহুলের ]

 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ