২৪  মাঘ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

শিক্ষকদের নির্যাতনে ‘আত্মঘাতী’ ছাত্রী, প্রতিবাদে স্কুলে হামলা, গ্রেপ্তার দুই

Published by: Anwesha Adhikary |    Posted: July 18, 2022 10:37 am|    Updated: July 18, 2022 11:07 am

Tamil Nadu student commits suicide, accused teachers of torture | Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শিক্ষকদের বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ তুলে আত্মঘাতী দ্বাদশ শ্রেণির এক ছাত্রী। ঘটনাটি তামিলনাড়ুর (Tamil Nadu) সালেম জেলার কাল্লাকুরিচি এলাকার। জানা গিয়েছে, হস্টেলের ছাদ থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছে সে। ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ইতিমধ্যেই দুই শিক্ষক-সহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ছাত্রীর মৃত্যুর সুবিচারের দাবিতে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল স্কুল চত্ত্বর। আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় স্কুলবাসে। শান্তি বজায় রাখতে এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। শেষ পর্যন্ত পুলিশের উদ্যোগে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

জানা গিয়েছে, সুইসাইড নোটে (Suicide Note) মৃত ছাত্রী লিখেছিলেন, স্কুলের দুই শিক্ষিকা তার উপরে নির্যাতন চালিয়েছেন। সেই কারণেই আবাসিক স্কুলের ছাদ থেকে লাফ দেয় সে। সঙ্গে সঙ্গে জখম অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেন নিরাপত্তারক্ষীরা। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই ওই ছাত্রীর মৃত্যু হয়। ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, প্রথমে তাঁদের জানানো হয়, মেয়ে আহত। কিন্তু হাসপাতালের ডাক্তাররা জানিয়েছেন, মৃত অবস্থাতেই হাসপাতালে আনা হয়েছিল ওই কিশোরীকে। সেই কারণেই স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলেছেন তাঁরা। প্রাথমিক ময়নাতদন্তে জানা গিয়েছে, প্রচুর রক্তক্ষরণ এবং আঘাত লাগার ফলেই মৃত্যু হয়েছে কিশোরীর।

[আরও পড়ুন: টিকাকরণের সাফল্য! দেশে এক ধাক্কায় অনেকটা কমল দৈনিক করোনা সংক্রমণ]

আত্মহত্যার খবর জানতে পেরেই অশান্তি শুরু হয় স্কুল চত্ত্বরে। পুড়িয়ে দেওয়া হয় স্কুলবাস। পুলিশের গাড়িতেও আগুন ধরিয়ে দেয় প্রতিবাদীরা। ঘটনায় জখম হয়েছেন বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী। সালেমের ডিজিপি শৈলেন্দ্র বাবু জানিয়েছেন, “এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।তবে প্রতিবাদ করতে গিয়ে স্কুল লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে। বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। ” তবে স্কুল চত্বরে হামলার ঘটনা নিয়ে কড়া পদক্ষেপ করার কথা বলেছেন তিনি। হামলার ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত ছিল, সকলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে স্কুলের প্রিন্সিপ্যালকে। সোমবার দুই অভিযুক্ত শিক্ষিকাকে হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, ওই দুই শিক্ষিকার নাম হরিপ্রিয়া এবং কৃতিকা। তাঁরা রসায়ন এবং অঙ্কের শিক্ষিকা। এছাড়াও স্কুলের সেক্রেটারি-সহ আরেক কর্মচারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। স্কুলের উপর হামলার নিন্দা জানিয়ে সোমবার বন্ধ তামিলনাড়ুর সমস্ত বেসরকারি স্কুল।

[আরও পড়ুন: আজ রাষ্ট্রপতি নির্বাচন, ভোটের আগে হোটেলে ‘বন্দি’ বাংলার বিজেপি বিধায়করা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে