৩০ চৈত্র  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১৩ এপ্রিল ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

জোটকে সমর্থন, মায়াবতীর আশীর্বাদ নিয়ে বিজেপিকে হুঁশিয়ারি তেজস্বীর

Published by: Utsab Roy Chowdhury |    Posted: January 14, 2019 12:20 pm|    Updated: January 14, 2019 12:25 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অখিলেশ যাদবের সঙ্গে জোট বাঁধার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মায়াবতীর সঙ্গে দেখা করলেন আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব। রবিবার বিএসপি নেত্রী মায়াবতীর সঙ্গে বৈঠকের পর তেজস্বী যাদব জানান, উত্তরপ্রদেশ ও বিহারে হোয়াইটওয়াশ হয়ে যাবে বিজেপি। মহাজোটের পথে না হেঁটে উত্তরপ্রদেশে নিজেদের মধ্যে আসন সমঝোতা করেছেন  অখিলেশ ও মায়াবতী। ঠিক সেই পথেই হাঁটলেন তেজস্বী। শুধু তাই নয় অখিলেশ-মায়াবতীর জোটকে সমর্থনও করলেন তিনি। সোমবার অখিলেশ যাদবের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন তেজস্বী যাদব।

[মোদি যদি এতই খারাপ হবে তাহলে মহাজোট করতে হচ্ছে কেন? কটাক্ষ প্রধানমন্ত্রীর]

রবিবার মায়াবতীর সঙ্গে দেখা করার পর তেজস্বী বলেন, “বাবাসাহেব আম্বেদকরের সংবিধান ছেড়ে নাগপুরের আইন ফলাচ্ছে বিজেপি সরকার। মায়াবতী ও অখিলেশের জোটকে মানুষ সমর্থন করেছে। উত্তরপ্রদেশ ও বিহারে খুঁজে পাওয়া যাবে না বিজেপিকে। উত্তরপ্রদেশে ওরা একটাও আসন পাবে না। এসপি-বিএসপি জোট সব আসন জিতে নেবে।” অখিলেশ ও মায়াবতী উত্তরপ্রদেশে ৩৮টি করে আসনে প্রার্থী দিয়েছে। তেজস্বী জানান, বিজেপিকে হারাতে তিনি ও তাঁর বাবা লালুপ্রসাদ যাদব সব সময় আঞ্চলিক দলগুলোর জোট বাঁধার কথা বলেছিলেন। বিহারের বিধানসভা নির্বাচনে একসঙ্গে জোট বেঁধেছিল আরজেডির নীতীশ কুমার ও লালুপ্রসাদ যাদব। হারতে হয়েছিল বিজেপিকে। লালুপ্রসাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠায় আরজেডির সমর্থন প্রত্যাহার করেন নীতীশ কুমার। এবার লোকসভা নির্বাচনের আগে এসপি ও বিএসপি জোট কংগ্রেসের জন্য দুটি আসন ছেড়েছে।

[দুবাইয়ের হোটেলে গোমাংস-সহ ব্রেকফাস্ট রাহুলের! তোলপাড় সোশ্যাল মিডিয়া]

বিহারের জোটেও মায়াবতী ও অখিলেশকে আসার আমন্ত্রণ জানালেন তেজস্বী যাদব। তেজস্বী বলেন, “দেশের প্রত্যেক মানুষ এখন উত্তরপ্রদেশের দিকে তাকিয়ে আছে। দিল্লির গদিতে যে আসবে, তাকে বিহার ও উত্তরপ্রদেশ পেরিয়েই আসতে হবে। তাই অখিলেশ ও মায়াবতী যে পদক্ষেপ নিয়েছে, তাতে খুশি দেশের মানুষ। আমি অনেক ছোট। জন্মদিনে মায়াবতীজির আশীর্বাদ নিতে এসেছি। মহান নেত্রী মায়বতী। ভবিষ্যতেও পথ দেখাবেন তিনি। আমরা সব সময় তাঁর থেকে রাজনীতির খুঁটিনাটি বিষয় শিখি। তাঁর সঙ্গে কথা বলার সুযোগ কেউ ছাড়ে!” নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কোনও ব্যক্তিগত লড়াই নয়। এই লড়াই বিজেপি ও আরএসএস-এর সঙ্গে বলেই জানালেন তেজস্বী। তিনি বলেন, “আমরা মোদিজীকে হারাতে নামিনি। আমাদের কোনও ব্যক্তিগত শত্রুতা নেই। এটা আদর্শের লড়াই। আমরা সব সময় আরএসএস ও বিজেপির বিরোধিতা করে এসেছি। দেশের মানুষের জন্য লড়াই করব। সংবিধান বাঁচানোর জন্য লড়াই জারি থাকবে আমাদের।” উত্তরপ্রদেশে তবে মায়াবতী ও অখিলেশের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে কংগ্রেস। কিন্তু লোকসভা ভোটে উত্তরপ্রদেশে ৮০টি আসনে প্রার্থী দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে। ২০০৯-এর লোকসভার মতো উত্তরপ্রদেশ থেকে সর্বাধিক আসন জয়ের স্বপ্ন দেখছে কংগ্রেস।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement