BREAKING NEWS

২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

সুপ্রিম নির্দেশে অপসারিত NRC কো-অর্ডিনেটর ‘খলনায়ক’ প্রতীক হাজেলা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: October 18, 2019 11:01 am|    Updated: October 18, 2019 11:03 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অপসারিত অসমের এনআরসি কো-অর্ডিনেটর প্রতীক হাজেলা। শুক্রবার এই নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। তাঁকে মদ্যপ্রদেশে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। তবে কেন এই পদক্ষেপ এই বিষয়ে স্পষ্ট কিছু জানায়নি শীর্ষ আদালত।

অসময়ে নায়ক থেকে খলনায়ক হওয়া হাজেলাকে নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে। নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হওয়ার পর রাজ্যের শাসকদল থেকে শুরু করে নানা সংগঠনগুলি আক্রমণ শানিয়েছে হাজেলার বিরুদ্ধে। অভিযোগ, ষড়যন্ত্র করে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের নাগরিকত্ব প্রদান করেছেন এনআরসি কোঅর্ডিনেটর। অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বনন্দ সনোওয়াল, ‘কিং মেকার’ হিমন্ত বিশ্বশর্মাও হাজেলার ভূমিকা নিয়ে প্রকাশ্যে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এহেন পরিস্থিতিতে সুপ্রিম কোর্টের এই সিদ্ধান্ত জল্পনা উসকে দিয়েছে। এদিন প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের একটি ডিভিশন বেঞ্চ হাজেলার অপসারণের নির্দেশ দেয়।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ৩০ জুলাই অসমের নাগরিকপঞ্জির চূড়ান্ত খসড়া প্রকাশিত হয়েছিল। যেখানে আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ৩.২৯ কোটি। তবে তার মধ্যে থেকে নাম বাদ দেওয়া হয়েছিল ৪০ লক্ষ আবেদনকারীর। তারপর চলতি বছরের ৩১ আগস্ট নাগরিকপঞ্জি প্রকাশ হতে দেখা যায়, বাদ পড়েছে ১৯ লক্ষ মানুষের নাম। এদের মধ্যে অধিকাংশই হিন্দু বাঙালি। বাদ পড়েছে ভূমিপুত্র অসমীয়াদের নামও। তারপরই প্রবল সমালোচনার মুখে পড়তে হয় হাজেলাকে। এক ধাক্কায় অসমের মনুষের কাছে নায়ক থেকে খলনায়ক হয়ে যান তিনি।  এনিয়ে রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভের পারদ চড়েছে অনেকটাই। যাদের দাবি মেনে এনআরসি-র প্রক্রিয়ায় কেন্দ্র সায় দিয়েছে, সেই অল অসম স্টুডেন্টস ইউনিয়নই খুশি নয় এই তালিকায়। এনিয়ে অন্তর্দ্বন্দ্ব রয়েছে রাজ্য বিজেপির অন্দরেই। অনেকেই অভিযোগ করছেন, কো-অর্ডিনেটর প্রতীক হাজেলা পক্ষপাতদুষ্ট হয়ে কাজ করেছেন।

[আরও পড়ুন: আপেলে লেখা জেহাদি বুরহানের নাম, এবার সুস্বাদু ফলই হাতিয়ার কাশ্মীরি জঙ্গিদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement