৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

অনুব্রতর গড়ে থাবা মুকুলের, তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে লাভপুরের বিধায়ক মনিরুল

Published by: Tanujit Das |    Posted: May 29, 2019 5:17 pm|    Updated: May 29, 2019 5:17 pm

An Images

সোম রায়, নয়াদিল্লি: এবার সরাসরি অনুব্রত গড়ে ভাঙল ধরালেন মুকুল রায়৷ তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন লাভপুরের তৃণমূল বিধায়ক মনিরুল ইসলাম৷ জেলার যুব তৃণমূলের সভাপতি তথা প্রাক্তন বিধায়ক গদাধর হাজরা৷ বীরভূম যুব তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক মহম্মদ আসিফ ইকবাল৷ জেলার শীর্ষ নেতা নিমাই দাস৷

[ আরও পড়ুন: অসুস্থতার জন্য মোদির মন্ত্রিসভা থেকে সরলেন জেটলি, অর্থমন্ত্রকে কে? ]

এই যোগদানের পর শাসকদলে আরও ভাঙনের হুঁশিয়ারি দেন মুকুল রায়৷ স্পষ্ট ভাষায় জানান, ‘‘মঙ্গলবারের যোগদান কর্মসূচির বর্ধিত অংশ এটা৷ ভবিষ্যতে আরও এমন যোগদান হবে।’’ কড়া ভাষায় মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়৷ এদিন বিজেপিতে নাম লিখিয়েই শাসকদল ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দেন মনিরুল ইসলাম৷ অভিযোগ করেন, লোকসভা নির্বাচনে মুসলিমদের ব্যবহার করে ছাপ্পা দিয়েছে শাসকদল৷ সিপিএম জমানার চেয়েও তৃণমূল জমানায় বেশি সন্ত্রাস হয়েছে৷ মঙ্গলবারই মুকুল রায় জানিয়েছিলেন যে, সাত দফায় তৃণমূলে ভাঙন ধরাবেন তিনি৷ বুধবারের যোগদান কর্মসূচি সেই হুঁশিয়ারিরই প্রতিফলন বলে মত রাজনৈতিক মহলের৷

[ আরও পড়ুন: গান্ধী পরিবারে ধাক্কা, ন্যাশনাল হেরাল্ডের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত ইডির ]

লোকসভা নির্বাচনে শোচনীয় ফলাফলের পর, সম্প্রতি কালীঘাটের বাড়িতে বৈঠক করে দলীয় নেতাদের গোষ্ঠীকোন্দল মেটানোর বার্তা দেন তৃণমূল নেত্রী৷ এরপরই বীরভূম তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রতর বাড়িতে যান তাঁর প্রতিপক্ষ কাজল শেখ৷ এবারের লোকসভায নির্বাচনে বীরভূমের দুটি আসনই জিতেছে তৃণমূল৷ কিন্তু নিজের ওয়ার্ডেই হেরেছেন অনুব্রত মণ্ডল৷ হেরেছেন জেলার মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিং৷ এমন অবস্থা থেকে দলকে ঘুরে দাঁড় করানোরই প্রতিজ্ঞা নিয়েছেন দুই নেতা, এমনই জানা গিয়েছে৷ অনুব্রত-কাজল শেখ কাছাকাছি আসার পরেই গদাধরকে নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছিল৷ সেই জল্পনাই বুধবার সত্যি হল৷ জল্পনার অবসান ঘটিয়ে মঙ্গলবার বিজেপিতে যোগ দেন মুকুলপুত্র শুভ্রাংশু রায়, বিষ্ণুপুরের কংগ্রেস বিধায়ক তুষারকান্তি ভট্টাচার্য এবং সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যান হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন্দ্র রায়৷ এছাড়া বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন শাসকদলের ৬৩ জন কাউন্সিলরও৷ এরফলে তৃণমূলের হাতছাড়া হয়েছে নৈহাটি, হালিশহর ও কাঁচরাপাড়া পুরসভা৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement