BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সুস্থতার ৩ দিনের মধ্যে ফের সংক্রমণ নয়ডার ২ রোগীর! উদ্বেগে চিকিৎসকরা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 13, 2020 4:03 pm|    Updated: April 13, 2020 4:03 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত শুক্রবারই হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছিলেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, দুই রোগীই পুরোপুরি করোনা মুক্ত। ৩ দিন কাটতে না কাটতেই ফের করোনায় (COVID-19) আক্রান্ত হলেন তাঁরা। উত্তরপ্রদেশের নয়ডার ওই ২ রোগীর দেহের সংক্রমণ চিন্তা বাড়াচ্ছে চিকিৎসকদের।এমনটাই দাবি একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের।

Corona-Virus

সাধারণত বেশিরভাগ ভাইরাস শরীরে একবার সংক্রমণ ঘটালে শরীর তার অ্যান্টিবডি তৈরি করে ফেলে। দ্বিতীয়বার ওই ভাইরাসটি আর সংক্রমণ ঘটাতে পারে না। সংক্রমণ ঘটালেও তা প্রতিরোধ করে মানবদেহের অনক্রম্যতা। কিন্তু করোনার ক্ষেত্রে বিষয়টি ব্যতিক্রম। একবার সংক্রমণ ঘটিয়েই থেমে থাকছে না COVID-19। চরিত্র বদলে ফিরে আসছে আক্রান্তের শরীরে। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এই ধরনের রিপোর্ট পাওয়া গেলেও, ভারতে সেভাবে সুস্থতার পর আক্রান্ত হওয়ার খবর বিশেষ পাওয়া যায়নি।

[আরও পড়ুন: সংক্রমণ রোধে নয়া পদক্ষেপ দিল্লির, জীবাণুমুক্তকরণে ব্যবহার জাপানি মেশিনের]

সোমবার নয়ডার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (Government Institute of Medical Sciences) এমন ২ জন ভরতি হয়েছেন যাঁদের শরীরে আগে করোনা সংক্রমণ ছিল। পরপর ২ টি টেস্টে রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পর ওই হাসপাতালটিই তাঁদের মুক্তি দেয়। চিকিৎসকরা তাঁদের বাড়িতে গিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেন। বাড়ি ফেরার পর আরও একবার তাঁদের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এবারে রিপোর্ট পজিটিভ আসে। অর্থাৎ চিকিৎসকরা সম্পূর্ণ সুস্থ ঘোষণার পরও আক্রান্ত হলেন দুই ব্যক্তি। তাঁদের আবার ওই হাসপাতালটিতেই ভরতি করা হয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, এই দুই রোগী সম্পর্কে বিস্তারিত রিপোর্ট কেন্দ্রের কাছে পাঠানো হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসার ফল, সেল্‌ফ কোয়ারেন্টাইনে মহারাষ্ট্রের আবাসন মন্ত্রী]

উল্লেখ্য, করোনা উপসর্গ থেকে মুক্তি পাওয়ার পরও ৩ থেকে ৮ শতাংশ রোগীর শরীরে এর সংক্রমণ হতে পারে বলে আগেই দাবি করেছিল চিনের একটি গবেষণা। আবার, আক্রান্ত ব্যক্তি সুস্থতার পরও বেশ কয়েকদিন সংক্রমণ ঘটাতে পারে এমন দাবিও করেছেন চিনের গবেষকরা। এবার ভারতেও তেমনই লক্ষণ দেখা গেল।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement