৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশজুড়ে CAA বিক্ষোভের আঁচ পড়েছে যোগীর রাজ্যেও। উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন শহরে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ-হিংসার ঘটনা ঘটেছে। পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয়েছে প্রায় ২০ জন বিক্ষোভকারীর। তার মধ্যেই প্রতিবাদে সোচ্চার লখনউয়ের ঘণ্টা ঘরের জমায়েত। আর সেই শান্তিপূর্ণ অবস্থান বিক্ষোভ চক্ষুশূল হয়েছে প্রশাসনের। মহিলা-শিশু নির্বিশেষে সেই জমায়েতে গিয়ে তাণ্ডব চালাল লখনউ পুলিশ। শুধু তাই নয়, শীতের রাতে ঠান্ডার কামড় থেকে বাঁচতে সহায় কম্বল এবং খাবারও পর্যন্ত কেড়ে নিল পুলিশ। যা নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে শনিবার রাতে।

দিল্লির শাহিনবাগ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে লখনউয়ের ঘণ্টা ঘরের সামনে শনিবার থেকে CAA বিরোধী আন্দোলনে বসেছেন প্রায় ৫০০ মহিলা। সেই জমায়েতে রয়েছে শিশুরাও। কিন্তু সেখানে গিয়ে শনিবার রাতে তাণ্ডব চালানোর অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে। মহিলাদের কাছ থেকে খাবার ও কম্বল কেড়ে নেওয়ার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এই ঘটনা যখন হচ্ছে, তখন আন্দোলনকারীদের মধ্যে অনেকে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে চিৎকার করতে থাকেন, ‘উত্তরপ্রদেশ কি চোর পুলিশ!’। মহিলা ও শিশুদের খাবার-কম্বল কেড়ে নেওয়ার ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়ায় নিন্দার ঝড় বইছে।

এর আগে CAA বিক্ষোভ নিয়ে বেশ কয়েকবার সমালোচনার মুখে পড়ে যোগীর পুলিশ। বিক্ষোভকারীদের গুলি চালিয়ে ২০ জনের মৃত্যু, আন্দোলন করলে পাকিস্তান চলে যাওয়ার হুমকি, এমনকী মৃত ও নবতিপর মানুষদের নামে সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করার অভিযোগে নোটিস পাঠানোর ঘটনা বারবার শিরোনামে উঠে এসেছে। বিক্ষোভ দমনে পুলিশ-প্রশাসনের ভূমিকা বারবার প্রশ্নের মুখে পড়েছে উত্তরপ্রদেশে। পুলিশের ‘অতিসক্রিয়তা’ নিয়ে সোচ্চার হয়েছেন নেটিজেনরা। এবার সেই তালিকায় নয়া সংযোজন লখনউয়ের ঘটনা।

[আরও পড়ুন: ‘সংসদে পাশ হওয়া আইন মানতে বাধ্য রাজ্য’, CAA ইস্যুতে উলটো সুর কপিল সিব্বলের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং