BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার ‘নিখোঁজ’ প্রবীণ তোগাড়িয়া

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 16, 2018 5:28 am|    Updated: January 16, 2018 5:28 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিনি জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পান। একাধিক রাজ্যে তাঁর নামে রয়েছে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা। এমন একজন হাইপ্রোফাইল মানুষ কিনা নিরুদ্দেশ হয়ে গেলেন। কয়েক মিনিট নয়, ঝাড়া বারো ঘণ্টা। শেষ পর্যন্ত তাঁর অবশ্য খোঁজ মেলে। তবে বেহুঁশ অবস্থায়। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সভাপতি প্রবীণ তোগাড়িয়াকে নিয়ে এই ঘটনায় বাড়ছে ধাঁধা । পুলিশ সূত্রে খবর, আহমেদাবাদের শাহিবাগ এলাকা থেকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করা হয় তাঁকে। আপাতত ভিএইচপি সভাপতি আহমেদাবাদের চন্দ্রমণি হাসপাতালে ভরতি। সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। চিকিৎসকরা জানান, তাঁর রক্তে শর্করার পরিমাণ খুব কম।

[যে কোনও পরিস্থিতিতে ২০১৮-র মধ্যেই হবে রাম মন্দির, ঘোষণা VHP-র]

প্রবল জল্পনা উসকে সোমবার সকালে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যান ভিএচপি-র এই দাপুটে নেতা। এদিন ২০১৫-র একটি মামলায় প্রবীণকে গ্রেপ্তার করতে তাঁর বাসভবনে যায় রাজস্থান পুলিশের একটি দল। তার আগেই অবশ্য নিরুদ্দেশ হয়ে যান তোগাড়িয়া। শেষ তাঁকে দেখা যায় আহমেদাবাদের পালডি এলাকায় ভিএইচপির সদর দপ্তরে। সোমবার পৌনে এগারোটা নাগাদ একজনের সঙ্গে অটোরিকশা করে বেরিয়ে যান তিনি। দেহরক্ষীদের বলে যান, আধঘণ্টার মধ্যে ফিরে আসবেন। কিন্তু তারপর থেকেই তাঁর আর কোনও খোঁজ ছিল না।

আহমেদাবাদের পুলিশ কমিশনার অশোক যাদব জানিয়েছেন, এখনও বয়ান দেওয়ার মতো অবস্থায় নেই তোগাড়িয়া। উদ্ধারের সময় তাঁর রক্তে শর্করার পরিমাণ খুবই কম ছিল। চন্দ্রমণি হাসপাতালের চিকিৎসক রূপকুমার আগরওয়াল জানান, এদিন রাত প্রায় ৯টা নাগাদ তাঁকে হাসপাতালের জরুরিবিভাগে আনা হয়। এখন তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল। নিখোঁজ হওয়ার পর ভিএইচপি কর্মীরা অভিযোগ করেন, তোগাড়িয়াকে নিয়ে গিয়েছে রাজস্থান পুলিশ। অভিযোগ ওঠে, বিজেপির ওপরের তলার কেউ ফাঁসানোর চেষ্টা করছেন তাঁকে। যদিও রাজস্থান পুলিশ জানায়, তোগাড়িয়া বাড়িতে না থাকায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। গুজরাটে ভিএচপি-র সাধারণ সম্পাদক রণছোড় ভারওয়াড় আহমেদাবাদ পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তাঁর উদ্ধার হওয়ার পর ভারওয়াড় জানান, “বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছে পুলিশ। তারপরই সব কিছু জানা যাবে। তোগাড়িয়াজী ভাল আছেন। তবে এখনই কথা বলার মতো অবস্থায় নেই তিনি।

উদ্ধার হলে তোগাড়িয়ার নিখোঁজ হওয়া নিয়ে উঠছে একাধিক প্রশ্ন। সোমবার গোটা দিন তিনি কী করছিলেন? এমন হাই-প্রোফাইল নেতার সঙ্গে দেহরক্ষী ছিল না কেন? কোথায় গিয়েছিলেন ওই নেতা? তবে এখনও পর্যন্ত কোনও প্রশ্নের উত্তর মেলেনি। তদন্তকারীরা জানাচ্ছেন তোগাড়িয়ার বয়ান না মেলা পর্যন্ত এখনও কোনও সিদ্ধান্তে আসা সম্ভব নয়।

[অমরনাথ হামলায় ‘মধুচন্দ্রিমায়’ ইতি, মোদিকে নিশানা তোগাড়িয়ার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement