BREAKING NEWS

২৪  মাঘ  ১৪২৯  বুধবার ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

বিজেপিকে ফাঁকা মাঠ নয়, উপরাষ্ট্রপতি পদেও প্রার্থী দিতে উদ্যোগী বিরোধী শিবির

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 5, 2022 11:50 am|    Updated: July 5, 2022 11:50 am

Vice President poll: Opposition may put up joint candidate | Sangbad Pratidin

বিশেষ সংবাদদাতা, নয়াদিল্লি: পদ্ম শিবিরে জল্পনা ছিলই। এবার উপরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী নিয়ে জল্পনা শুরু হল বিরোধী শিবিরে। এনসিপি (NCP) নেতা শরদ পওয়ার দিল্লিতে পা রাখলেই বিরোধী জোটের প্রার্থী নিয়ে আলোচনা শুরু হওয়ার কথা। 

বামেদের পক্ষ থেকে পাওয়ারকে ইতিমধ্যেই আলোচনায় বসার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তৃণমূল ও কংগ্রেস-সহ অন্যান্য অ-বিজেপি দলগুলি সহমত হলেই প্রার্থী চূড়ান্ত হবে বলে মনে করা হচ্ছে। বস্তুত, মহারাষ্ট্রের ডামাডোলের মধ্যে এতদিন উপরাষ্ট্রপতি পদে নির্বাচন নিয়ে আলোচনা তেমন এগোতে পারেনি বিরোধীরা। মঙ্গলবার উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন (Election Commission)। তারপরই তোড়জোড় শুরু হবে বলে মনে করা হচ্ছে। 

[আরও পড়ুন: উদ্ধবের সঙ্গে সন্ধির বার্তা? আদিত্য ঠাকরের বিধায়ক পদ বাতিলে পদক্ষেপ করছে না মহারাষ্ট্র সরকার]

কমিশনের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর থেকেই গেরুয়া শিবিরের প্রার্থী কে হবেন, বিরোধীরা প্রার্থী দেবে কিনা সেই জল্পনায় সরগরম ছিল রাজধানী। সূত্রের খবর, কেন্দ্রের শাসকদলের উপরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসাবে দু’জনের নাম ঘোরাফেরা করছে। প্রথমজন পাঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং (Captain Amrinder Singh)। তিনি এখন চিকিৎসার জন্য বিদেশে। দেশে ফিরলেই নিজের নতুন দল নিয়ে বিজেপিতে মিশে যেতে পারেন বলে জানা গিয়েছে। সেক্ষেত্রে তাঁকে উপরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী করতে হবে বলে শর্ত রাখতে পারেন বর্ষীয়ান এই পাঞ্জাবী নেতা। অন্যদিকে দৌড়ে রয়েছেন মোদি (Narendra Modi) মন্ত্রিসভার প্রাক্তন সদস্য মুখতার আব্বাস নকভি। তাঁকে উপরাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী না করলে নকভির ভবিষ্যৎ কী হবে তা নিয়ে চিন্তিত গেরুয়া শিবির।

[আরও পড়ুন: অপরাধীদের সঙ্গে রাজনীতিবিদদের যোগসাজশ চলছে, এটা বন্ধ হোক: এলাহাবাদ হাই কোর্ট]

অন্যদিকে, বিজেপিকে (BJP) ফাঁকা মাঠ ছাড়তে নারাজ বিরোধীরাও। উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনে পরাজয় নিশ্চিত জেনেও নিজেদের মধ্যে আলোচনা শুরু করেছে অ-বিজেপি দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। তবে এখন যা পরিস্থিতি পুরোটাই নির্ভর করছে শরদ পাওয়ারের (Sharad Pawar) উপর। তিনি দিল্লি আসার পর বিজেপি বিরোধী দলগুলির মধ্যে প্রাথমিক আলোচনা শুরু হতে পারে বলে, জানা গিয়েছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে