BREAKING NEWS

২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৭ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ট্রাম্পের সফরের দ্বিতীয় দিনেও জ্বলছে দিল্লি, তড়িঘড়ি বৈঠকে অমিত শাহ   

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: February 25, 2020 9:22 am|    Updated: February 25, 2020 11:46 am

Violence erupts in Delhi again on day two of Trump's bisit

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে ফের উত্তপ্ত নয়াদিল্লি।মঙ্গলবার সকালে উত্তরপূর্ব দিল্লির একাধিক জায়গায় পাথর বৃষ্টি ও আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটেছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সফরকালে এহেন ঘটনায় রীতিমতো উদ্বিগ্ন প্রশাসন। 

সংবাদ সংস্থা এএনআই সূত্রে খবর, এদিন সকালে ব্রহ্মপুরী ও গোকুলপুরী এলাকায় সংঘর্ষে জড়ায় দুই গোষ্ঠী। চলে পাথর বৃষ্টি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে উত্তপ্ত এলাকায় ফ্ল্যাগমার্চ শুরু করেছে RAF। দিল্লির এক দমকল কর্তা জানিয়েছেন, গতকাল মধ্যরাত থেকে অশান্ত এলাকায় ৪৫টি অগ্নিকাণ্ডের খবর এসেছে। আগুন নেভাতে গিয়ে আহত হয়েছেন তিনজন দমকলকর্মী। দিল্লি পুলিশ জানিয়েছে, জাফরাবাদ ও মউজপুর এলাকায় তুঙ্গে উত্তেজনা। যদিও সেখানে এখনও পর্যন্ত ১৪৪ ধারা লাগু করা হয়নি। তবে নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে পাঁচটি মেট্রো স্টেশন আপাতত বন্ধ রাখা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নিজের বাসভবনে স্থানীয় বিধায়ক ও অধিকারিকদের নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।                  

এদিকে, উত্তর-পূর্ব দিল্লির হিংসার ঘটনায় বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি চালানো যুবককে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। এই যুবকই এক পুলিশকর্মীকে একা পেয়ে তাঁর মুখের দিকে বন্দুক তাক করে ধরেছিল। তার গুলিতেই প্রাণ গিয়েছে আর এক পুলিশকর্মীর। পরিচয় শনাক্ত করা দেখা গিয়েছে ওই যুবকের নাম মহম্মদ শাহরুখ। গতকাল রাতেও জাফরাবাদ হিংসা নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বৈঠকএ দিল্লি পুলিশের শীর্ষই আধিকারিক ও স্বরাষ্ট্রসচিব-সহ অন্যান্য অধিকারিকদের সঙ্গে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার বিষয়ে আলোচনা করেন তিনি।এদিকে, আজ ভারত ও আমেরিকার মধ্যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রতিরক্ষা চুক্তি স্বাক্ষরিত হওয়ার কথা রয়েছে। দিল্লির হায়দরাবাদ হাউসে প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে আলোচনায় বসবেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এহেন পরিস্থিততে দিল্লির হিংসা নিয়ে উদ্বিগ্ন সাউথ ব্লক। 

         

উল্লেখ্য, শনিবার রাত থেকে জাফরাবাদে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ), জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) ও জাতীয় জনসংখ্যা পঞ্জিকরণ (এনপিআর)-এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছিলেন শ দু’য়েক মহিলা। রবিবার সেখানে উপস্থিত হন বিজেপি নেতা কপিল মিশ্র। পুলিশকে বলেন, “ট্রাম্প দেশ ছাড়ার আগে রাস্তা খালি করান। এরপর আমাদের রাস্তায় নামতে হবে। তখন কিছু বলতে পারবেন না।” এরপর থেকেই চড়তে থাকে উত্তেজনার পারদ। আগের দিনই দুইপক্ষের মধে্য ইট-পাথরের লড়াই চলে। সোমবার সকালে হঠাৎ করেই বিক্ষোভকারীদের সামনে চলে আসে সিএএ-র সমর্থকদের মিছিল। স্থানীয়দের দাবি অনুযায়ী, ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিতে দিতে বিক্ষোভকারীদের সামনে চলে আসে তারা। এরপরই ফের দু’পক্ষের মধে্য শুরু হয় অশান্তি। আগের দিনের মতোই চালু হয় ইট-পাথর ছোড়া। এই সময় ইট এসে পড়ে হেড কনস্টেবল রতন লালের মাথায়। হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত ঘোষণা করা হয়। আহত হয়েছেন শাহদারার ডিএসপি অমিত শর্মাও। সব মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে সাতজনের। 

[আরও পড়ুন: ডাহা ফেল ‘ব্রোকলি সামোসা’, হাই-টির নিরামিষ মেনু চেখেও দেখলেন না ট্রাম্প]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে