BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘আমরা কারওর হাতের পুতুল নই’, পাকিস্তানকে তীব্র আক্রমণ ফারুখ আবদুল্লার

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: August 30, 2020 3:45 pm|    Updated: August 30, 2020 4:29 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কয়েকদিন আগে জম্মু ও কাশ্মীরের ৬টি রাজনৈতিক দল মিলে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের বিরুদ্ধে একজোট হয়ে আন্দোলনের শপথ নিয়েছিলেন। গত ২২ আগস্ট এই সংক্রান্ত বৈঠকটি হয়েছিল কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ফারুখ আবদু্ল্লার গুপকর রোডের বাড়িতে। এরপরই এই সিদ্ধান্তের ভূয়সী প্রশংসা করে ভারতের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয় পাকিস্তান। কাশ্মীরিদের এই লড়াই পাশে থাকার বার্তা দেয়। রবিবার শ্রীনগরে বসে পাকিস্তানের এই আচরণের তীব্র সমালোচনা করলেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রধান ফারুখ আবদুল্লা (Farooq Abdullah)।

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান (Pakistan) সবসময় জম্মু ও কাশ্মীরের মূল ধারার রাজনৈতিক দলগুলিকে হেনস্তা করার চেষ্টা করেছে। এখন আচমকা ওরা আমাদের পছন্দ করছে। কিন্তু, এটা ওদের পরিষ্কার করে বুঝিয়ে দিতে চাই যে আমরা কারওর হাতের পুতুল (puppet) নই। নয়াদিল্লিরও নয় আবার সীমান্তের ওপারে থাকা অন্যদেরও নয়। আমরা একমাত্র জম্মু ও কাশ্মীরের মানুষের প্রতিই দায়বদ্ধ এবং ওনাদের জন্যই কাজ করতে চাই।’

[আরও পড়ুন: ‘খেলনা নিয়ে নয়, পরীক্ষা নিয়ে আলোচনা চাই’, মোদির ‘মন কি বাতে’র পালটা দিলেন রাহুল]

প্রায় প্রতিদিনই সীমান্তের ওপার থেকে জঙ্গিদের অনুপ্রদেশ করিয়ে ভূস্বর্গে নাশকতার চেষ্টা চালায় পাকিস্তান। রবিবার এ সম্পর্কে কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর মতামত জানতে চান সাংবাদিকরা। তার জবাবে ফারুখ আবদুল্লা বলেন. ‘আমি পাকিস্তানের কাছে সীমান্তের ওপার থেকে স্বশস্ত্র জঙ্গিদের কাশ্মীরে না পাঠানোর অনুরোধ জানাচ্ছি। আমরা চাই আমাদের রাজ্যে রক্তপাতের ঘটনা ঘটা বন্ধ হয়ে যাক। প্রতিদিন সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে যে গুলিচালনার ঘটনা ঘটছে। তার ফলে সীমান্তের দুদিকেই আমাদের মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। অবিলম্বে এই ধরনের ঘটনা বন্ধ হওয়া দরকার। জম্মু ও কাশ্মীরের সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলি শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মধ্যে দিয়েই এখানকার মানুষদের অধিকারের জন্য লড়াই করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। এর মধ্যে গত বছরের ৫ আগস্ট অসাংবিধানিক পদ্ধতিতে কেড়ে নেওয়া অধিকারটিও রয়েছে।’

[আরও পড়ুন: দেশের বেশিরভাগ জেলবন্দি অপরাধীই মুসলিম এবং দলিত, বলছে NCRB’র রিপোর্ট]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement