১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘করোনা মোকাবিলায় নিরলস পরিশ্রম’, প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ WHO

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: March 17, 2020 11:58 am|    Updated: March 17, 2020 11:58 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা মোকাবিলায় ভারত সরকারের ভূমিকায় উচ্ছ্বসিত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। মারক ভাইরাস রুখতে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর নিরলস পরিশ্রম করছে, যা এক কথায় প্রশংসনীয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভারতের প্রতিনিধি হেঙ্ক বেকেডাম(Henk Bekedam) মঙ্গলবার একথা জানিয়েছেন। COVID-19 এর সংক্রমণ রুখতে ভারত কী কী ব্যবস্থা নিয়েছে, তা খতিয়ে দেখতে মঙ্গলবার জাতীয় চিকিৎসা গবেষণা সংসদে যান বেকেডাম। সেখানকার পরিকাঠামো দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধি।

স্বাস্থ্য মন্ত্রক এবং ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিক্যাল রিসার্চের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলার পর WHO’র প্রতিনিধি বলেন, “ভারতে গবেষণার জন্য খুব ভাল পরিকাঠামো আছে। বিশেষ করে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিক্যাল রিসার্চ (Indian Council of Medical Research) এবং স্বাস্থ্য গবেষণা বিভাগে। ভারত আলাদা করে ভাইরাসটিকে সনাক্ত করতে পারছে। এবার ভারতও আমাদের গবেষণার অংশ হয়ে যাবে।” এরপরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং তাঁর দপ্তরের ভূমিকার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন বেকেডাম। তিনি বলেন, “ভারত সরকার এবং প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের দায়বদ্ধতা সত্যিই প্রশংসনীয় এবং কার্যকারী। এজন্যই হয়তো ভারত এখনও করোনার বিরুদ্ধে ভালভাবে লড়াই করছে। আমি খুব খুশি যে সবাই এভাবে কার্যকরী হয়েছে।”

[আরও পড়ুন: করোনা LIVE UPDATE: ভারতে বাড়ল মৃত্যু,মহারাষ্ট্রে বৃদ্ধের প্রাণহানিতে মৃতের সংখ্যা ৩]

উল্লেখ্য, প্রতিবেশী দেশ চিনের তুলনায় ভারতে করোনার প্রকোপ অনেকটাই কম। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট ১২৭ জনের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। মারক ভাইরাস এদেশে পা রাখতেই কেন্দ্রের তরফে নির্দেশিকা দিয়ে যাবতীয় জমায়েত এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। শুরু হয়েছে আলাদা করে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার তৈরির কাজ। করোনা রোগীরা যাতে অন্যদের সংস্পর্শে না আসতে পারেন, তা নিশ্চিত করতে সবরকম পদক্ষেপ করছে সরকার। একই সঙ্গে শুরু হয়েছে গবেষণা। মোদি সরকারের নেতামন্ত্রী থেকে শুরু করে বিরোধী শিবির পর্যন্ত সকলেই বারবার সচেতনতার বার্তা দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নিজেও বারবার করোনা নিয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement