২৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অসমে এনআরসি হয়ে গিয়েছে। দেশের বিভিন্ন সীমান্তবর্তী রাজ্যগুলিতেই অসমের মতো জাতীয় নাগরিকপঞ্জি তৈরির পক্ষে সওয়াল করে আসছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। শুধু তাইই নয়, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বা CAB আনার কথা বলা হচ্ছে। সংসদে সোমবার থেকে শুরু হতে চলা শীতকালীন অধিবেশনেই এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। যা এই মুহূর্তে সর্বাধিক গুরুত্বপূ্র্ণ বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞদের একাংশ। তাই এবারের শীতকালীন অধিবেশনে CAB নিয়ে আলোচনা কোন পথে এগোয়, সেদিকে চোখ থাকছে সকলেরই।

নভেম্বর ১৮ থেকে ডিসেম্বর ১৩, মোট ২০টি কাজের দিন সংসদের অধিবেশন চলবে। তার মধ্যে অন্তত ৩৫টি বিল পেশ এবং পাস করানোর লক্ষ্য কেন্দ্রের। এই অধিবেশনেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ১৯৫৫ বিলে সংশোধনী আনতে বদ্ধপরিকর কেন্দ্র। যার মাধ্যমে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান থেকে ভারতে শরণার্থী হিসেবে আসা হিন্দু, শিখ, জৈন, বৌদ্ধ, পার্সি এবং খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী মানুষজনকে ভারতের নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে। অর্থাৎ পরোক্ষে এই ইঙ্গিতও রয়েছে যে মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষজন নাগরিকত্ব পাওয়া থেকে বাদ পড়তে পারেন।

[ আরও পড়ুন: এনডিএ বৈঠকে গরহাজির উদ্ধবের দল, সংসদেও বিরোধী আসনে বসার ঘোষণা শিব সেনার]

১৯৫৫ সালের আইন অনুযায়ী, ভিন দেশ থেকে আসা কোনও শরণার্থীকে নাগরিকত্ব পেতে হলে অন্তত ১ বছর টানা ভারতে থাকতে হবে। একইসঙ্গে, ১৪ বছরের মধ্যে অন্তত ১১ বছর এদেশে কাটাতে হবে। সংশোধিত বিলে ১১ বছর কমিয়ে ৬ বছর করার প্রস্তাব রয়েছে। গত অধিবেশনে বিলটি কেন্দ্রীয় সরকার পেশ করার চেষ্টা করলেও, বিরোধীদের হইহট্টগোলের জেরে তা সময়মতো করা হয়ে ওঠেনি। এবারও যে তেমন বিরোধিতা হবে না, সে সম্পর্কে নিশ্চয়তা তো নেইই। তবে এরাজ্যের শাসকদল তৃণমূল নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের তীব্র বিরোধিতা করতে পারে বলে সূত্রের খবর। অন্যান্য বেশ কয়েকটি ইস্যু তুলে অধিবেশনের প্রথম থেকে শেষপর্যন্ত তৃণমূল-সহ বিরোধী দলগুলি ভিতরে,বাইরে কেন্দ্রকে বেশ চাপে রাখার কৌশল নিয়েছে। ফলে এবারের অধিবেশনও উত্তপ্ত হওয়ার আশঙ্কার রয়েছে।
এছাড়া এবারের অধিবেশনে রূপান্তরকামীদের নিয়েও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিল পেশ হওয়ার কথা, যার নাম দ্য ট্রান্সজেন্ডার পার্সনস (প্রোটেকশন অফ রাইটস) ২০১৯। এই বিলের প্রস্তাব, রূপান্তরকামী নারী বা পুরুষ অথবা লিঙ্গ নির্ধারণে কোনওরকম জটিলতা রয়েছে, এমন মানুষজনকে সামাজিকভাবে একটা অবস্থানে এনে ‘কিন্নর’ বা ‘হিজড়া’ হিসেবে পরিচিতি দান করা। চিটফান্ড আইন সংশোধনী বিল,ই-সিগারেট নিয়ে নিষেধাজ্ঞা সংক্রান্ত বিল, সারোগেসি নিয়ে সংশোধনী বিল-সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ বিল পেশ হওয়ার কথা আসন্ন অধিবেশনে।

[ আরও পড়ুন: রাম নাম লিখলেই ব্যাংকের তরফে মিলবে পুরস্কার! কীভাবে জানেন?]

তবে অধিবেশন শুরুর দিনই কেন্দ্রবিরোধী অভিযানে শামিল হচ্ছেন জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। সোমবার নিজেদের ক্যাম্পাস থেকে সংসদ পর্যন্ত প্রতিবাদ মিছিল করবেন তাঁরা। শিক্ষাক্ষেত্রে গৈরিকীকরণের প্রভাব, বেসরকারিকরণ-সহ একাধিক জ্বলন্ত ইস্যুর বিরোধিতায় তাঁরা কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হবেন। তাঁদের এই মিছিল কর্মসূচির জন্য সংসদ চত্বরে বাড়তি নিরাপত্তা থাকবে। মোতায়েন থাকবেন প্রচুর পুলিশ কর্মী।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং