৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কতজন মহিলা ভক্ত সবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করেছেন, এই নিয়ে জোরদার বিতর্ক চলছে কেরলে৷ আন্দোলনকারীদের দাবি, কনকদুর্গা, বিন্দু এবং এক শ্রীলঙ্কান মহিলা আপাতত আয়াপ্পার কাছে পৌঁছেছেন৷ কিন্তু মঞ্জু নামে দলিত এক মহিলার দাবি, গত মঙ্গলবার তিনিও ঢুকেছিলেন সবরীমালায়৷ ঠিক কীভাবে আন্দোলনকারীদের চোখে ধুলো দিয়ে আয়াপ্পার কাছে পৌঁছলেন তিনি, সোশ্যাল মিডিয়ায় জানালেন সেকথাও৷

[সীতারমণকে নিয়ে মন্তব্য করে বিপাকে রাহুল, নোটিস মহিলা কমিশনের]

‘রেনেসাঁ কেরল টুওয়ার্ডস সবরীমালা’ নামে ফেসবুকে গ্রুপ তৈরি করা হয়েছে৷ ওই গ্রুপের সদস্যদের মধ্যে একজন হলেন মঞ্জু৷ তিনি মহিলা দলিত ফেডারেশনের সক্রিয় কর্মী৷ ফেসবুকে বেশ কয়েকটি ছবি এবং ভিডিও পোস্ট করেছেন মঞ্জু৷ ওই ভিডিও-র মাধ্যমে মঞ্জু দাবি করেছেন, ৮ জানুয়ারি সবরীমালায় প্রবেশ করেছিলেন তিনি৷ কীভাবে মন্দিরে প্রবেশ করলেন তিনি, সবিস্তারে জানিয়েছেন সেকথাও৷ মঞ্জু বলেন, ‘‘আমি ৩৬ বছর বয়সি৷ আমার মতো ঋতুমতী মহিলাকে আয়াপ্পার কাছে যেতে দিতে চাইবে না আন্দোলনকারীরা, তা আমি জানতাম৷ তাই মন্দিরে ঢোকার জন্য আন্দোলনকারীদের চোখে ধুলো দেওয়ার জন্য একটি পরিকল্পনা করি৷ চুলে সাদা রং করে ফেলি৷ এরপর বৃদ্ধার মতো সেজে ত্রিসুরগামী বাসে চড়ি৷ নির্দিষ্ট রাস্তা দিয়ে মঙ্গলবার সবরীমালায় ঢুকি৷ প্রায় দু’ঘণ্টা ওইদিন মন্দিরেই ছিলাম৷ আয়াপ্পার পুজোও দিয়েছি৷’’ সুপ্রিম কোর্টের নিয়ম মেনে মহিলাদের সবরীমালায় পৌঁছতে না দিলে আবারও ভবিষ্যতে ছদ্মবেশে মন্দিরে ঢুকতে বাধ্য হব বলেও হুঁশিয়ারি মঞ্জুর৷

[অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত বাধ্যতামূলক হচ্ছে হিন্দি শিক্ষা! তুঙ্গে জল্পনা]

গত সপ্তাহে লোকচক্ষু এড়িয়ে কড়া পুলিশি প্রহরায় সবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করেছিলেন কনকদুর্গা এবং বিন্দু৷ তার দিনকয়েক পরে শ্রীলঙ্কান এক মহিলাও ওই মন্দিরে পা রাখেন৷ তিন ‘অশুচি’-র প্রবেশে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা কেরল৷ শুরু হয় মন্দির পবিত্র করার কাজ৷ জায়গায় জায়গায় আরএসএস ও সিপিএম কর্মীরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন৷ সেই আন্দোলনের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও সবরীমালায় এই দলিত মহিলার প্রবেশ ঘিরে অশান্তির আশঙ্কায় কেরল প্রশাসন৷

[মন্দির চত্বরে মদ বিলি বিজেপি বিধায়কের, বাদ যায়নি নাবালকরাও]

এদিকে, সবরীমালায় মহিলা প্রবেশ নিয়ে অশান্তির আঁচে রীতিমতো অসন্তুষ্ট কেরল হাই কোর্ট৷ আয়াপ্পার মন্দিরে প্রবেশকারী কনকদুর্গা, বিন্দু কিংবা ওই শ্রীলঙ্কান মহিলা প্রকৃত ভক্ত নাকি তাঁদের মন্দিরে ঢুকতে দেওয়ার নেপথ্যে কোনও রাজনৈতিক স্বার্থ রয়েছে, তা খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক৷ হাই কোর্টের নির্দেশ অনুযায়ী সব দিক খতিয়ে দেখছেন পুলিশ আধিকারিকরা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং