BREAKING NEWS

৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

কাশি নিয়ে বাসেই ঠায় বসে মহিলা যাত্রী, নামিয়ে চিকিৎসা করাতে গিয়ে হিমশিম সকলে

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: March 26, 2020 1:43 pm|    Updated: March 26, 2020 1:59 pm

A woman passenger in a bus with cough refuses to be treated in Kolkata

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অসুস্থ রোগীকে নিয়ে হিমশিম দশা বাসচালক, যাত্রী থেকে শুরু করে স্বাস্থ্যকর্মীদের। দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার একটি বাসে সফরের সময় কাশছিলেন এক মহিলা যাত্রী। তা টের পাওয়ামাত্র বাসচালক সোজা বাস নিয়ে চলে যান বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। ওই যাত্রীকে বাস থেকে নেমে চিকিৎসার জন্য বলা হয়। কিন্তু তিনি তা করতে নারাজ। বাসেই অনড় হয়ে বসে থাকেন। টানা ৭ ঘণ্টা ধরে তাঁকে নামানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হন স্বাস্থ্যকর্মীরাও। এ নিয়ে আজ সকাল থেকে তুমুল চাঞ্চল্য বেলেঘাটা আইডি হাসপাতাল চত্বরে।

সূত্রের খবর, আজ সকালে দক্ষিণবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার একটি বাস জনা কয়েক যাত্রী নিয়ে আসছিল কলকাতার দিকে। সকলে সাবধানতা অবলম্বন করে দূরত্ব বজায় রেখেই বসেছিলেন সকলে। সেসময় চোখে পড়ে, এক মহিলা কাশছেন। ব্যাপারটি নজরে আসতেই বাসচালক নিজের উপস্থিত বুদ্ধি কাজে লাগিয়ে বাসটি সোজা নিয়ে যান বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। অন্যান্য যাত্রীরা ওই মহিলাকে সেখানে নেমে চিকিৎসার করানোর অনুরোধ করেন। কিন্তু কিছুতেই বাস থেকে নামতে রাজি হন না বলে অভিযোগ চালক এবং যাত্রীদের। হাসপাতালের সামনে এমন ঘটনার খবর পৌঁছায় স্বাস্থ্যকর্মীদের কাছে। তাঁরাও বেরিয়ে এসে মহিলাকে বাস থেকে নামিয়ে চিকিৎসা করানোর কথা বলেন। কারও কথাই মানতে নারাজ ওই মহিলা। তিনি কাশি নিয়ে বাসের আসনেই ঠায় বসে।

[আরও পড়ুন: করোনায় মৃত্যু হলে ধাপায় শেষকৃত্য, বড় পদক্ষেপ কলকাতা পুরসভার]

দীর্ঘক্ষণের চেষ্টাতেও তাঁকে বাস থেকে নামানো যায়নি। এদিকে, চালকেরও সাফ বক্তব্য, বাস নিয়ে অন্য কোথাও যাবেন না। আগে তা পুরোপুরি স্যানিটাইজ করবেন। তারপরেই তা অন্যত্র যাবে। কিন্তু মহিলা যাত্রী বাস থেকে না নামলে তা সম্ভবও নয়। ফলে একটা টানাপোড়েন তৈরি হয়েছে। সংক্রমণ রুখতে বারবার এত প্রচার সত্ত্বেও আমজনতার হুঁশ যে ফেরেনি পুরোপুরি, এই ঘটনাই তার প্রমাণ। বারবারই বলা হচ্ছে, কোনওরকম অসুস্থতা থাকলে আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। তবুও চিকিৎসা করাতে এখনও অনেকেরই অনীহা। এমনটা চলতে থাকলে, লকডাউন সত্ত্বেও যে পরিস্থিতি কতটা নিয়ন্ত্রণে থাকবে, তা নিয়ে সংশয়।

[আরও পড়ুন: কলকাতায় করোনা আক্রান্ত আরও একজন, বৃদ্ধের শরীরে মিলল জীবাণু]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে