BREAKING NEWS

১২ শ্রাবণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২৯ জুলাই ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

ED অফিসার পরিচয় দিয়ে সাংসদ শান্তনু সেনকে প্রতারণার চেষ্টা, গ্রেপ্তার অভিযুক্ত

Published by: Sayani Sen |    Posted: July 16, 2021 10:47 am|    Updated: July 16, 2021 12:26 pm

A youth arrested over the allegation of cheating TMC MP Shantanu Sen । Sangbad Pratidin

ফাইল চিত্র

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সম্প্রতি প্রতারণার শিকার হয়েছিলেন যাদবপুরের তৃণমূল সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। কসবার ভুয়ো করোনা টিকাকরণ ক্যাম্প থেকে ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন তারকা সাংসদ। আর এবার প্রতারণার চেষ্টা করা হল রাজ্যসভার সাংসদ শান্তনু সেনকে (Shantanu Sen)। ইডি অফিসার পরিচয় দিয়ে ফোন করা হয় তাঁকে। যদিও সাংসদের সন্দেহ হওয়ায় লালবাজারে জানান। গ্রেপ্তার হয় এক অভিযুক্ত।

তৃণমূল সাংসদের দাবি, অজানা একটি নম্বর থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি তাঁকে ফোন করে। ইডি অফিসার (ED Officer) পরিচয় দেয়। শুধু তাই নয়, ইডি অফিসার পরিচয় দিয়ে টাকার দাবি জানায়। সাংসদকে ইডি সংক্রান্ত বিভিন্ন কাজে সাহায্যেরও আশ্বাস দেয় সে। আর তাতেই সন্দেহ হয় সাংসদের। লালবাজারে যোগাযোগ করেন। দায়ের করেন অভিযোগ। প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই তদন্তে নামে পুলিশ। খতিয়ে দেখা হয় সাংসদের কললিস্ট। ফোন নম্বরের সূত্র ধরে টাওয়ার লোকেশন ট্র্যাক করে গোয়েন্দারা অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে। সাংসদকে প্রতারণার জালে জড়ানোর চেষ্টার ঘটনায় কার্যত তাজ্জব তদন্তকারীরা। ওই যুবক একা নয়, এই প্রতারণা চক্রের শিকড় অনেক গভীরে রয়েছে বলেই মনে করছেন তদন্তকারীরা। এই ঘটনায় আর কারা কারা জড়িত, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। শান্তনু সেনের আগে অন্য কেউ ওই যুবকের পাতা ফাঁদে পা দিয়েছেন কিনা, তাও তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্তদের জরুরি ভিত্তিতে টিকাকরণ শুরু, SSKM-এ ভ্যাকসিন নিলেন ৫০ জন]

এদিকে, চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা নিয়ে প্রতারণা করার অভিযোগে গ্রেপ্তার হল এক সেনাকর্মী। ফোর্ট উইলিয়ামে কর্মরত রাজেশ প্রসাদ নামে ওই সেনাকর্মীকে বৃহস্পতিবার সন্ধেয় গ্রেপ্তার করে হাওড়ার সাঁকরাইল থানার পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর, সাঁকরাইলের বাসিন্দা ওই সেনাকর্মী এলাকারই কিছু যুবককে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রায় ১৪ লক্ষ টাকা তুলেছিল। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তাকে গ্রেপ্তার করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে। হাওড়া সিটি পুলিশের ডিসি সাউথ প্রতীক্ষা ঝারখারিয়া জানালেন, সাঁকরাইল থানায় ওই যুবকের বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নামে টাকা নেওয়ার কিছু অভিযোগ জমা পড়েছিল। সেই ভিত্তিতেই তদন্তে নেমে সাঁকরাইল থানার পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

[আরও পড়ু: হাই কোর্টে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলা: CBI তদন্তের সুপারিশ NHRC’র রিপোর্টে, পালটা মমতার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement