BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘গো ব্যাক’ স্লোগানের প্রতিবাদ, সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউর বিক্ষোভ থেকে ধৃত ৩০ বিজেপি কর্মী

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 30, 2019 5:45 pm|    Updated: August 30, 2019 5:45 pm

Actor Suman Bannerjee and 30 others arrested from BJP agitation

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: সাতসকালে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে লেকটাউনে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান দেওয়ার প্রতিবাদে আজ সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে বিক্ষোভে নেমে গ্রেপ্তার হলেন বিজেপি কর্মী তথা অভিনেতা সুমন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং রাজ্য নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। আইন ভেঙে বিক্ষোভে শামিল হওয়ার অভিযোগে তাঁদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: দেশকে পথ দেখাল পশ্চিমবঙ্গ, বিধানসভায় পাশ গণপিটুনি প্রতিরোধ বিল]

শুক্রবার সকালে লেকটাউন এলাকায় হাঁটতে বেরিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। একটি দোকানে দলীয় কর্মী,সমর্থকদের সঙ্গে চা খাওয়ার কথা ছিল তাঁর। ‘চায়ে পে চর্চা’য় যোগ দিতে ওই এলাকায় জড়ো হন বহু বিজেপি কর্মী, সমর্থক। ব্যানার, ফেস্টুন নিয়ে জড়ো হয়েছিলেন তাঁরা। অভিযোগ, বেশ কয়েকজন তৃণমূল কর্মী, সমর্থকও অশান্তি বাঁধানোর উদ্দেশে ওই এলাকায় জড়ো হন। কিছু না বলে হঠাৎই
বিজেপির ব্যানার, ফেস্টুন ছিঁড়তে শুরু করেন তাঁরা। বাধা দিতে যান স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা। দু’পক্ষের মধ্যে তর্কাতর্কি শুরু হয়ে যায়। হাতাহাতিও চলে একপ্রস্থ। ইতিমধ্যে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ঘটনাস্থলে পৌঁছন। তাঁকে লক্ষ্য করে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান দেওয়া হয়।বিজেপি-তৃণমূলের সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় লেকটাউন থানার পুলিশ। তাদের সামনেই দু’পক্ষের হাতাহাতি হয়। তবে
কিছুক্ষণের মধ্যেই ভিড় হঠিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন পুলিশকর্মীরা।

সকালের এই ঘটনার প্রতিবাদে বিকেলের দিকে সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউতে বিক্ষোভ, অবরোধ করেন দলীয় কর্মীরা। কলুটোলা মোড়ে দলের রাজ্য দপ্তরের সামনেই অবস্থান বিক্ষোভে বসেন তাঁরা। নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন রাজ্য নেতা রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল বিরোধী স্লোগান উঠছিল সেখান থেকে। পুলিশের তরফে প্রথমে তাঁদের বাধা দেওয়া হয়। তা না মেনে বিক্ষোভে অটল থাকেন বিজেপি কর্মীরা। এরপর সেখান থেকে ৩০
জনেরও বেশি কর্মী, সমর্থককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। যার মধ্যে রয়েছেন রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিনেতা সুমন বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁদের পুলিশ ভ্যানে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় লালবাজারে। পুলিশের এই ভূমিকায় যথারীতি নিন্দায় সরব রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। প্রথমে রাজ্য সভাপতিকে ঘিরে তৃণমূল কর্মীদের বিক্ষোভ, হামলা, তারপর তার প্রতিবাদে নেমে বিজেপি কর্মীদের গ্রেপ্তারি, সমস্ত ঘটনাক্রম অত্যন্ত নিন্দনীয় বলে মনে করছে রাজ্য নেতৃত্ব। পরবর্তীতে এনিয়ে বৃহত্তর কোনও কর্মসূচি গ্রহণ করতে পারেন বলে সূত্রের খবর।

[আরও পড়ুন: নাইজেরীয় প্রেমিকের পাল্লায় পড়ে ৯ লক্ষ খোয়ালেন বাগুইআটির বধূ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে