২ কার্তিক  ১৪২৮  বুধবার ২০ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

টসিলিজুমাব বিতর্কের মাঝেই ফের রাজ্যের মেডিক্যাল কাউন্সিলের সভাপতি পদে নির্মল মাজি

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 15, 2021 8:29 am|    Updated: July 15, 2021 3:46 pm

Amid controversy over Tocilizumab case Nirmal Maji again elected as chairperson of WB Medical Council | Sangbad Pratidin

অভিরূপ দাস: দ্বিতীয়বারের জন্য ওয়েস্ট বেঙ্গল মেডিক্যাল কাউন্সিলের সভাপতি নির্বাচিত হলেন ডা. নির্মল মাজি। বুধবার আনুষ্ঠানিক ঘোষণার পর তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন, মেডিক্যাল কাউন্সিলের অন্যান্য সদস্যরা। তবে এই নির্বাচন নিয়ে চিকিৎসকদের একাংশের মধ্যে ক্ষোভ রয়েছে।

কীভাবে নির্বাচিত হলেন সভাপতি? প্রথমে আলোচনায় বসেন রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের সদস্যরা। নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে কয়েকটি নাম পাঠানো হয় রাজ্য সরকারের কাছে। এরপর রাজ্য সরকার নতুন কাউন্সিল সভাপতি ঠিক করেন। রাজ্যপালের মাধ্যমেই ঘোষিত হয় নতুন কাউন্সিল সভাপতির নাম। সেভাবেই কাউন্সিল সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন চিকিৎসক নির্মল মাজি। সূত্রের খবর, রাজ্য সরকারের কাছে মোট তিনটি নাম পাঠানো হয়েছিল। ডা. নির্মল মাজির সঙ্গে অন্য দু’জন ছিলেন মেডিক্যাল কলেজের অধ্যাপক ডা. তপন কুমার নস্কর, এবং বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজের অপথ্যালমোলজির অধ্যাপক ডা. মৌসুমী বন্দ্যোপাধ্যায়। শেষমেশ রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে নির্মল মাজিকেই রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের সভাপতি হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: আয়ার ‘মারে’ সরকারি হাসপাতালে রোগীমৃত্যুর অভিযোগ, দ্রুত পদক্ষেপের আশ্বাস কর্তৃপক্ষের]

এ প্রসঙ্গে রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিলের সদস্য ডা. আবুল কাসেম মোল্লা জানিয়েছেন, ওনাকে অসংখ্য অভিনন্দন। এই নিয়ে দ্বিতীয়বার সভাপতি নির্বাচিত হলেন ডা. নির্মল মাজি। তাঁর নেতৃত্বে আগের তুলনায় অনেক গতি এসেছে কাজে। ভবিষ্যতেও সেভাবেই এগিয়ে চলবে রাজ্য মেডিক্যাল কাউন্সিল। এদিকে ডা. নির্মল মাজি ফের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় ক্ষুব্ধ চিকিৎসকদের একাংশ। এর প্রতিবাদে ওয়েস্ট বেঙ্গল ডক্টরস ফোরামের পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। চিকিৎসকদের একাংশের অভিযোগ, ২০১৮ সালে ওয়েস্ট বেঙ্গল মেডিক্যাল কাউন্সিলের নির্বাচনে ব্যাপক জালিয়াতি হয়েছিল। বিচার চেয়ে হাই কোর্টে মামলা করেছিল চিকিৎসকদের সাত সংগঠনের যৌথ মঞ্চ “জয়েন্ট প্ল্যাটফর্ম অফ ডক্টরস।” মামলা গ্রহণ করে কলকাতা হাইকোর্ট নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় স্থগিতাদেশ দিয়েছিল।

[আরও পড়ুন: রাজভবনে রাজ্যপালের সঙ্গে সাক্ষাৎ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের]

চিকিৎসকদের একাংশের বক্তব্য, আদালতের দীর্ঘসূত্রিতায় জয়েন্ট প্ল্যাটফর্মের প্রার্থীদের করা মামলার শুনানি ঠিকমত হয়নি। গত দেড় বছর কোভিড অতিমারীজনিত লকডাউনের কারণে আদালতের কাজও ঠিকমতো হচ্ছে না। রাজ্য সরকারের উচিৎ ছিল পুরনো মামলাটির দ্রুত নিষ্পত্তি করে নতুন মেডিক্যাল কাউন্সিল গঠন করা। তা না করে নির্মল মাজিকে সভাপতি করায় ক্ষুব্ধ কিছু চিকিৎসক। সম্প্রতি কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ থেকে কোভিডের বহুমূল্য ওষুধ টসিলিজুমাব উধাও হয়ে যায়। এই হাসপাতালেরই রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান ডা. নির্মল মাজি। চিকিৎসকদের একাংশের বক্তব্য, কোভিড আবহে এমন
ন্যক্কারজনক ঘটনায় ভর্ৎসনার বদলে পুরস্কার পেলেন ডা. মাজি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement