৬ মাঘ  ১৪২৬  সোমবার ২০ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৬ মাঘ  ১৪২৬  সোমবার ২০ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মহারাষ্ট্র ও হরিয়ানা বিধানসভা ভোটের সময়ই উপনির্বাচন হয়েছিল বিহারের কিষাণগঞ্জ বিধানসভায়। আর সবাইকে চমকে দিয়ে তাতে জয় পেয়েছিল হায়দরাবাদের সাংসদ আসাদউদ্দিন ওয়েইসির দল অল ইন্ডিয়া মজলিশ-ই-ইত্তেহাদুল মুসলিমিন। তারপর থেকেই বাংলায় সংগঠন বাড়ানোর বিষয়টিকে পাখির চোখ করেছে তারা। বিষয়টি বুঝতে পেরে কয়েকদিন আগে কোচবিহারে গিয়ে আসাউদ্দিনের দলকে না করে আক্রমণও করেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, ‘বিজেপির টাকায় কিছু মানুষ হায়দরাবাদ থেকে এসে রাজ্যে অশান্তি পাকানোর চেষ্টা করছে। বাংলার মানুষের মনে সাম্প্রদায়িক বিভাজন তৈরি করছে। এই রাজ্যে তাদের কোনও ঠাঁই নেই।’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই মন্তব্যের প্রেক্ষিতে তৃণমূল তাঁকে ও তাঁর দলকে ভয় পাচ্ছে বলে কটাক্ষ করেন আসাদউদ্দিন ওয়েইসি। এবং আগামীতে বাংলায় শক্তিশালী সংগঠন তৈরির জন্য সবরকম চেষ্টা চালাবেন বলেও পরিষ্কার জানিয়ে দেন। সেই লক্ষ্যে জানুয়ারি মাসে ব্রিগেডে সভা করে আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশের পরিকল্পনা নিয়েছে এআইএমআইএম। তাতে নাকি উপস্থিত থাকার কথা এআইএমআইএম প্রধান আসাদউদ্দিন ও তাঁর ভাই আকবরউদ্দিন ওয়েইসির।  

[আরও পড়ুন: বাগবাজার ঘাট থেকে তরুণীর বস্তাবন্দি দেহ উদ্ধার, ট্যাটুর সূত্র ধরে তদন্তে পুলিশ]

এআইএমআইএম সূত্রে খবর, জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ে ব্রিগেডে সভা করার প্রস্তুতি চলছে। সেনা বাহিনীর কাছে ইতিমধ্যেই অনুমতির জন্য আবেদন জানানো হয়েছে। কমপক্ষে ১০ লক্ষের মানুষের জমায়েত করার চেষ্টা চলছে। সেই লক্ষ্যে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ছোট ছোট আকারে সভাও করছে তারা। এনআরসি ও নাগরিক সংশোধনী বিলকে কেন্দ্র করে পশ্চিমবঙ্গের সংখ্যালঘু মানুষদের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। রাজ্যের শাসক ও বিরোধী দলগুলি এবিষয়ে উপযুক্ত কোনও উত্তর দিতে পারছে না। ফলে দিন দিন তা আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই বিষয়টিকে হাতিয়ার করতে চাইছে তারা। আতঙ্কিত মানুষগুলির পাশে দাঁড়িয়ে বঙ্গে সংগঠনকে শক্ত করতে চাইছে।

এআইএমআইএমের এক বর্ষীয়ান নেতা জানুয়ারিতে সভার বিষয়টি পরিকল্পনা স্তরে রয়েছে বলে দাবি করেছেন। যদিও অন্য এক নেতা জামিরুল হাসান জানান, ব্রিগেডে সভা করার জন্য ইতিমধ্যেই সেনাবাহিনীর কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। আসাদউদ্দিন ওয়েইসি নিজে থাকবেন বলেছেন। আশা করা হচ্ছে প্রায় ১০ লক্ষ মানুষ আসবেন। তাই ব্রিগেডে সভা করলেই সুবিধা হবে। জনসভার মঞ্চ থেকেই এই রাজ্যের সভাপতির নাম ঘোষণা করা হবে। তারপরই রাজ্যজুড়ে সংগঠন বাড়ানোর লক্ষ্যে ঝাঁপিয়ে পড়বে দল। এর জন্য আসাদউদ্দিন ও তাঁর ভাই আকবরউদ্দিন ওয়েইসিকে বিভিন্ন জেলায় সভা করানোর পরিকল্পনাও নেওয়া হয়েছে।

[আরও পড়ুন: বিল বিতর্কের মাঝেই বিধানসভায় রাজ্যপাল, গেট বন্ধ থাকায় ক্ষুব্ধ ধনকড়]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং