BREAKING NEWS

১৯  মাঘ  ১৪২৯  রবিবার ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

বাম-বিরোধী ভোট তৃণমূলেই, মূল্যায়ন বিজেপির

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 3, 2016 10:50 am|    Updated: June 3, 2016 10:50 am

Anti alliance voters cast their votes to TMC: BJP

স্টাফ রিপোর্টার: বাম-কংগ্রেস জোটকে মানুষ গ্রহণ করেনি৷ কমিউনিস্ট বিরোধী ভোটের বেশিরভাগটাই তৃণমূলের ঝুলিতেই গিয়েছে৷ এমনটাই মূল্যায়ন বিজেপির৷ বিধানসভা নির্বাচনে রাজ্যে তৃণমূলের বিপুল সাফল্য প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক তথা রাজ্যে দলের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়র বক্তব্য, “কংগ্রেস ও কমিউনিস্টদের জোট ছিল৷ মানুষ চেয়েছিল সিপিএম না জেতে৷ কমিউনিস্ট বিরোধী ভোট মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দিকেই গিয়েছে৷” যদিও রাজ্যে এবার বিজেপির ফলাফল নিয়ে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব খুব একটা সন্তুষ্ট না হলেও যে তারা খুশি সেটাও এদিন জানিয়েছেন কৈলাস৷ জোটকে খোঁচা দিলেও পাশাপাশি সরকার বিরোধিতায় ইস্যুভিত্তিক বিধানসভার অভ্যন্তরে বাম-কংগ্রেসের সঙ্গে একজোটে সরব হওয়ার ক্ষেত্রে যে তাঁর সায় রয়েছে এটা এদিন স্পষ্ট করে দিয়ে কয়েকদিন আগে দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বক্তব্যেই কার্যত সিলমোহরও দিয়েছেন বিজয়বর্গীয়৷ এদিন নির্বাচনী বিশ্লেষণ নিয়ে দলের সাংগঠনিক বৈঠক শুরুর আগে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, দলের ফলাফল যেখানে খারাপ হয়েছে, সেখানে কোনও সাবোতাজ হয়েছিল কি না তা নিয়ে তদন্ত হবে৷ বিভিন্ন নেতার সম্পর্কে আসা অভিযোগগুলি খতিয়ে দেখে তাদের বিরু‌দ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ারও ইঙ্গিত দিয়েছেন রাজ্য সভাপতি৷
বিধানসভা নির্বাচনে এবার বিজেপির ভোট ২০১১ সালের তুলনায় ৭ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে৷ আসন সংখ্যাও বেড়ে হয়েছে ৩৷ সব জেলাতেই বিজেপির ভোট বেড়েছে৷ এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার রাজ্য দফতরে দুপুর থেকে দু’দফায় রাজ্যনেতাদের নিয়ে সাংগঠনিক বৈঠক করেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিবপ্রকাশ, রাহুল সিনহা, দিলীপ ঘোষ৷ প্রথম দফার বৈঠকটি হয় প্রশিক্ষণ সম্পর্কে৷ সারা দেশজুড়েই দলের বাছাই করা ১৫ লক্ষ কার্যকর্তাকে বিজেপির ভাবধারা-সহ সাতটি বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে৷ বৈঠকের শুরুতেই প্রশিক্ষণ প্রসঙ্গে জায়ান্ট স্ক্রিনে সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ-র ভিডিও রেকর্ডিং করা বক্তব্য শোনানো হয়৷ এ রাজ্যেও দলের ৫০ হাজার কার্যকর্তাকে প্রশিক্ষিত করে তোলা হবে পঞ্চায়েত ভোটের আগেই৷ দ্বিতীয় দফার বৈঠকটি হয় সাংগঠনিক বিষয় নিয়ে৷ নির্বাচনে পারফরম্যান্স ঠিক না থাকায় ও বিভিন্ন অভিযোগ ওঠায় রাজ্য ও জেলাস্তরে বেশ কিছু নেতা পদ হারাতে পারেন বলেও ইঙ্গিত মিলেছে বৈঠক থেকে৷ এদিন কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেছেন, দলের আসন কম এলেও ভোট বেড়েছে বাংলায়৷ কিন্তু বাম বিরোধী ভোট বিজেপির ঝুলিতে আসা না নিয়ে কৈলাসের মন্তব্য প্রসঙ্গে রাজনৈতিক মহল মনে করছে, বাম বিরোধী ভোট বিজেপির দিকে না গিয়ে তৃণমূলের দিকে যাওয়া মানে তৃণমূলের বিকল্প হিসাবে বাংলায় বিজেপি নিজেদের যে তুলে ধরতে এখনও পারেনি সেটাই কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন বিজেপির এই শীর্ষ নেতা৷ এদিকে, কলকাতার বিক্ষোভ সভা থেকে এবং খড়গপুরে গিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ তৃণমূল ও তাদের দলের সাংসদদের সম্পর্কে একাধিকবার বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন৷ সেই মন্তব্য বিভিন্ন্ সংবাদ মাধ্যমে প্রচারিত হওয়ার পরই পিএমও থেকে এবং দলের শীর্ষ নেতৃত্ব বিষয়টি নিয়ে জিজ্ঞেস করেন দিলীপবাবুকে৷ বৃহস্পতিবার অবশ্য খোলামেলাভাবে দিলীপবাবু নিজেই একথা জানান৷ দলীয় সূত্রে খবর, বিজেপির শীর্ষ নেতা রামলালও এইধরনের মন্তব্য নিয়ে দিলীপ ঘোষের সঙ্গে কথা বলেন৷ দিল্লি সূত্রে খবর, যাতে কোনও ভুল ব্যাখ্যা না হয় সেজন্য ভবিষ্যতে সতর্কিত মন্তব্য করার জন্য দিলীপ ঘোষকে বলেছেন রামলাল৷ উল্লেখ্য, বুধবারই দিল্লিতে রামলালের সঙ্গে গিয়ে দেখা করেছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে