৫ মাঘ  ১৪২৫  রবিবার ২০ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বনধের দ্বিতীয় দিনেও শহরে ধর্মঘটীদের তাণ্ডব অব্যাহত। রেহাই নেই পুলকারেরও। বুধবার আমহার্স্ট স্ট্রিটে পড়ুয়া বোঝাই একটি পুলকারে হামলা চালাল বনধ সমর্থকরা। আহত হয়েছে বেশ কয়েকটি শিশু। ঘটনায় ২২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

[ ফের উত্তপ্ত যাদবপুর, পুলিশের সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধ সুজন চক্রবর্তীর নেতৃত্বাধীন বাম কর্মীদের]

দ্বিতীয় দিনে বামেদের বনধের তেমন কোনও প্রভাব পড়েনি শহরে। কলকাতায় জনজীবন স্বাভাবিকই বলা চলে। সকালের দিকে অবশ্য মিছিল করাকে কেন্দ্র করে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল যাদবপুর। দলের কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে মিছিল করতে গিয়ে গ্রেপ্তার হন বিধায়ক সুজন চক্রবর্তী। এদিকে আমহার্স্ট স্ট্রিটে পুলকারে হামলা চালাল ধর্মঘটীরা। আহত বেশ কয়েকটি শিশু। ভাঙচুর চলে পুলকারের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্যাক্সিতে।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সকালে পুলকারে চেপে স্কুলে যাচ্ছিল ১৪ থেকে ১৫ জন শিশু। আমহার্স্ট স্ট্রিটের কাছে গাড়িটিকে দাঁড় করায় একদল বনধ সমর্থক।কিছু বুঝে ওঠার আগেই শুরু হয়ে যায় ভাঙচুর। চোখের সামনে এমন ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েন অভিভাবকরা। রীতিমতো হাতজোড় করে পুলকারটিকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য হামলাকারীদের কাছে অনুরোধ করতে থাকেন তাঁরা। কিন্তু, তাতে কোনও লাভ হয়নি।উলটে পুলকারের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্যাক্সিতে ভাঙচুর চালানো হয়।খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ।পুলকারে হামলার অভিযোগে ২২ জনকে আটক করা হয়েছে। সকলেই সিপিএম কর্মী বলে অভিযোগ।

কলকাতায় বনধ নতুন নয়।কিন্তু ক্ষমতায় আসার পর রাজ্য থেকে বনধ সংস্কৃতি দূর করতে তৎপর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ‘কর্মনাশা’ বনধকে প্রত্যাখান করেছেন সাধারণ মানুষও। কিন্তু, বনধ সমর্থকদের তাণ্ডব কমেনি। সোমবার ময়দান মেট্রো স্টেশনে ঢুকে বিক্ষোভ দেখায় একদল বনধ সমর্থক। আটকে পড়ে দমদমগামী একটি মেট্রো।পরিষেবা ব্যাহত হয় প্রায় মিনিট সাতেক।

[ মেট্রো স্টেশনেও বনধ সমর্থকদের তাণ্ডব, ব্যাহত পরিষেবা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং