২৮ কার্তিক  ১৪২৬  শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুধুমাত্র গুজরাটিই কেন জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন) পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে আঞ্চলিক ভাষা হবে? অন্য কোনও ভাষা নয় কেন? কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সির নয়া নির্দেশিকার বিরোধিতায় এমনই প্রশ্ন তুললেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অবিলম্বে এই নির্দেশিকার বদল না হলে আন্দোলনে নামারও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

বুধবার একাধিক টুইটে মুখ্যমন্ত্রী লেখেন, “ভারত বহু ভাষা, ধর্ম, সংস্কৃতি, গোষ্ঠীর দেশ। তবে কেন্দ্রের মোদি সরকারের উদ্দেশ্য সব ধর্ম ও আঞ্চলিক ভাষাকে অসম্মান করা। ইংরাজি ও হিন্দিতে সর্বভারতীয় জয়েন্ট পরীক্ষা নেওয়া হয়। এবার যোগ হল গুজরাটি ভাষা। এই পদক্ষেপ মোটেই প্রশংসনীয় নয়। আমি গুজরাটি ভাষাকে ভালবাসি ঠিকই। তবে কেন্দ্রীয় সরকারকে উত্তর দিতে হবে অন্য আঞ্চলিক ভাষাগুলিকে কেন উপেক্ষা করা হচ্ছে? গুজরাটিকে যদি জয়েন্ট এন্ট্রান্স (মেইন)-এর আঞ্চলিক ভাষা করা হয়, তবে থাকতে হবে বাংলা-সহ সব আঞ্চলিক ভাষাই। আঞ্চলিক ভাষায় কথা বলা মানুষের ভাবাবেগে আঘাত সহ্য করব না। এই বিমাতৃসুলভ আচরণে কোনও পরিবর্তন না হলে আমরা প্রতিবাদ করবই।”

[আরও পড়ুন: বাসে ভিড়? অ্যাপের মাধ্যমে সতর্ক করবেন যাত্রীরাই]

সর্বভারতীয় জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষায় ইংরাজি ও হিন্দি ভাষায় প্রশ্নপত্র তৈরি হত। পরীক্ষার্থীরাও এই দুটি ভাষাতেই উত্তর দিতে পারেন। তবে আঞ্চলিক ভাষায় পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ করে দেয় ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি বা NTA। তাই সেক্ষেত্রে আঞ্চলিক ভাষা হিসাবে স্থান পেয়েছে গুজরাটি। আঞ্চলিক ভাষাগুলির মধ্যে শুধু গুজরাটিকে কেন প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন তুলেছে বাম, কংগ্রেস-সহ অন্যান্য বিরোধীরাও।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং