২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘লড়াই নয়, ২০২৪-এ বড় খেলা হবে’, কাজে নেমেই বার্তা যুব তৃণমূল সভানেত্রী সায়নী ঘোষের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 7, 2021 1:49 pm|    Updated: June 7, 2021 2:25 pm

'Bigger game in 2024', says Saayoni Ghosh, newly appointed chairperson of youth wing of TMC | Sangbad Pratidin

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: ‘খেলা হবে’ – এই স্লোগান তুলেই একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাজিমাত করেছে তৃণমূল (TMC)। ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে তৃতীয়বারের জন্য এসেছে রাজ্যের ক্ষমতায়। যদিও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ের গোলাপ বিছানো পথে রয়ে গিয়েছে গুটিকয়েক কাঁটা। আসানসোল দক্ষিণ কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী সায়নী ঘোষের (Saayoni Ghosh) হার তেমনই একটি। তবে সায়নীর পরিশ্রম এবং অদম্য ইচ্ছাশক্তির জন্য তাঁর কাঁধে সংগঠনের বড় দায়িত্ব দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। যুব তৃণমূলের সভানেত্রী পদে বসানো হয়েছে তাঁকে।শনিবার সেই দায়িত্ব পাওয়ার পর সোমবার থেকে কাজ শুরু করে দিলেন সায়নী। দুপুরে তৃণমূল ভবনে গেলেন তিনি। বলে দিলেন, ”২০২৪-এ লড়াই নয়, বড় খেলা হবে।”

তৃতীয়বার রাজ্যের ক্ষমতায় আসার পর শনিবার তৃণমূলের সাংগঠনিক স্তরে বেশ গুরুত্বপূর্ণ রদবদল করেছেন দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। যুব তৃণমূল সভাপতির পদ থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরিয়ে তাঁকে আরও বড় দায়িত্বে এনেছেন। অভিষেক এখন দলের নাম্বার ২, সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক। আর অভিষেকের ছেড়ে যাওয়া পদে বসানো হয়েছে নির্বাচনে প্রাণপণ লড়াই করেও পরাজিত হওয়া তারকা প্রার্থী সায়নী ঘোষকে। তিনিই এখন থেকে যুব তৃণমূল সংগঠনের সর্বোচ্চ ব্যক্তি। আর দায়িত্ব পেয়েই কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন টলি অভিনেত্রী।

[আরও পড়ুন: শেষ প্রস্তুতি, নবান্নের সবুজ সংকেত মিললেই ফের ছুটবে মেট্রো]

সোমবার দুপুরে সায়নী নিজের কাজ বুঝে নিতে যান তৃণমূল ভবনে। সেখানে দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে দেখা করেন। সদ্যপ্রাক্তন সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) সঙ্গে বৈঠক করার কথা তাঁর। অভিষেকের থেকেই সমস্ত কাজ বুঝে নেবেন সায়নী। তিনি জানিয়েছেন, খুব শিগগিরই জেলাস্তরের যুব সংগঠনের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন। তৃণমূল ভবনের সামনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ভবিষ্যত পরিকল্পনা জানানোর পাশাপাশি সংগঠনকে চাঙ্গা করতে সায়নীর আত্মবিশ্বাসী বক্তব্য, ”২০২৪-এ লড়াই হবে না, বড় খেলা হবে।”

[আরও পড়ুন: ঘূর্ণিঝড় ‘যশে’ কতটা ক্ষয়ক্ষতি বঙ্গে? বিধ্বস্ত এলাকা ঘুরে দেখবে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল]

নতুন করে সংগঠন সাজিয়ে নেওয়ার পিছনে তৃণমূল সুপ্রিমোর মূল লক্ষ্য হল, ২০২৪-এর লোকসভার লড়াইয়ের প্রস্তুতি আরও গুছিয়ে করা। জাতীয় স্তরের নির্বাচনী যুদ্ধে যে এবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর দল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে, সেই ইঙ্গিত স্পষ্ট। তা জানেন দলের ছোট, বড় সকলেই। নতুন যুব তৃণমূল সভানেত্রী সায়নীর পাখির চোখও তাই চব্বিশের দিকে। তাই প্রথম দিন কাজে নেমে তাঁর বার্তা, ‘লড়াই নয়, খেলা হবে’, বিশেষভাবে তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠল।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে