BREAKING NEWS

১০ শ্রাবণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ২৭ জুলাই ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

হারের কারণ খুঁজতে ২৯ জুন বৈঠকে BJP, সংগঠনে রদবদল নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 22, 2021 12:13 pm|    Updated: June 22, 2021 12:49 pm

BJP calls meet on June 29 to discuss poll debacle in West Bengal | Sangbad Pratidin

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: ২০২১-এ বাংলা দখলের স্বপ্ন পূরণ হয়নি। বাংলায় ক্ষমতা দখল নিয়ে বিজেপির (BJP) কেন্দ্রীয় থেকে রাজ্য নেতারা যখন নিশ্চিত ছিলেন, তখন কেন উলটো ফল হল? ঠিক কী কী কারণে BJP নির্ধারিত লক্ষ্যে পৌঁছতে পারল না? হারের সেই সব কারণ নিয়ে একেবারে নিচুতলার রিপোর্ট শুনতে চাইছেন অমিত শাহ (Amit Shah)-জে পি নাড্ডারা। রাজ্য নেতাদের থেকে নয়, একেবারে জেলা থেকে বুথস্তরের রিপোর্ট কী? হারের জন্য কী কী দায়ী? কী ভুল পদক্ষেপ হয়েছিল? প্রচারে কোন বিষয়টিকে মানুষ ভালভাবে নেয়নি? সেটা নিয়ে জেলা নেতাদের কথা শুনতে চায় দিল্লি। আর তাই ২৯ জুন কলকাতায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া রাজ্য বিজেপির কার্যকারিণী বৈঠকে থাকার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা নিজেই।

বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) বলেছেন, দলের মিটিং-মিছিলে মানুষ আসছিলেন। বিজেপির পক্ষে হাওয়া তৈরি হয়েছিল, কিন্তু তারপরও কেন আশানুরূপ ফল হল না তা দেখার দরকার রয়েছে। ভোটের ফল প্রকাশের পর রাজ্য নেতা ও জেলা সভাপতিদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় নেতারা দুটি বৈঠক করলেও, সেখানে হারের কারণ নিয়ে বিশেষ আলোচনা হয়নি। দ্বিতীয় বৈঠকে কয়েকজন জেলা সভাপতি বিষয়টি তুলতে গেলে কেন্দ্রীয় নেতারাই তাদের বিরত করেন। বলা হয়, অন্য বৈঠকে আলোচনা হবে। ২৯ জুন রাজ্য কার্যকারিণী বৈঠক হতে চলেছে। যেখানে রাজ্য কমিটির সদস্য এবং সব জেলা সভাপতিরা থাকবেন। সেই বৈঠকেই বিপর্যয়ের কারণ পর্যালোচনা এবং ক্ষোভ প্রকাশ্যে আসতে পারে। বিভিন্ন বিষয়ে জেলা সভাপতিরা সরব হবেন। একেবারে জেপি নাড্ডার (JP Nadda) সামনেই। ভারচুয়ালি বৈঠকে থাকবেন নাড্ডা।

[আরও পড়ুন: অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে গোপনে সাক্ষাৎ, তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন প্রণবপুত্র অভিজিৎ?]

দলের সর্বভারতীয় সভাপতি সামনে থাকবেন। তাঁর সামনে মনের কথা খুলে বলতে চান রাজ্য কমিটির একাধিক সদস্য ও জেলার সভাপতিরাও। জেলা সভাপতিরাও হারের কারণ নিয়ে রিপোর্ট তৈরি করছেন। কোন কোন বিষয়গুলো উঠতে পারে জেপি নাড্ডার সামনে? এক, দলবদলুদের নিয়ে যে কিছু লাভ হয়নি, উলটে ক্ষতি হয়েছে, সেটা তুলে ধরা হবে। দুই, দলে নতুনদের প্রাধান্য দেওয়ার ফলে পুরোনো কর্মীরা অনেকেই নিষ্ক্রিয় হয়ে গিয়েছিল। তিন, অনেক ক্ষেত্রেই প্রার্থী নির্বাচন সঠিক ছিল না। চার, ভোটের রণকৌশল সামলানো বা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব থেকে অনেক রাজ্য নেতাদের ব্রাত্য করে রাখা। এছাড়া, একাধিক বিষয় উঠতে চলেছে বৈঠকে। ওই বৈঠকে রাজ্যে বিজেপির দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত চার নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিব প্রকাশ, অরবিন্দ মেনন ও অমিত মালব্যরা সশরীরে থাকবেন। কেবল নাড্ডাই থাকবেন ভারচুয়ালি। সূত্রের খবর, কার্যকারিণী বৈঠকে আগামী দিনে দলের সাংগঠনিক রদবদল নিয়ে আলোচনা হতে পারে। ওই বৈঠকের পরই দলের বিভিন্ন রাজ্যস্তর থেকে শুরু করে বিভিন্ন শাখা সংগঠনে রদবদলের সম্ভাবনা আছে। রদবদল হতে পারে জেলা সংগঠনগুলিতেও।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement