×

৩ চৈত্র  ১৪২৫  মঙ্গলবার ১৯ মার্চ ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৩ চৈত্র  ১৪২৫  মঙ্গলবার ১৯ মার্চ ২০১৯ 

BREAKING NEWS

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: দলীয় প্রার্থী নির্বাচনে জিতলে এলাকার উন্নয়নে কী কী কাজ করবে সেই তালিকা দিয়ে লোকসভা কেন্দ্র পিছু প্রতিশ্রুতিপত্র ভোটারদের হাতে তুলে দেবে বিজেপি। কেন্দ্রীয়ভাবে যেমন ইস্তাহার প্রকাশ হবে, তেমনই ৪২টি লোকসভা কেন্দ্রের জন্য, সেই এলাকার বিষয় নিয়ে মিনি ইস্তাহার প্রকাশেরও চিন্তাভাবনা করছে বিজেপির জেলা কমিটিগুলি। জেলার তরফে রাজ্য নেতৃত্বের কাছে এধরনের প্রস্তাব এসেছে বলে দলীয় সূত্রে খবর। পাশাপাশি দলের কথা এবং কেন্দ্রীয় সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ যাতে প্রতি ভোটারের কাছে নিয়ে যাওয়া যায় সে জন্য বুথে বুথে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ তৈরি করে সাধারণ ভোটারদের তাতে যুক্ত করার প্রক্রিয়া চলছে। বুথ এলাকায় হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের মাধ্যমে প্রচারের ভাবনা।

[শুক্রবারও বৃষ্টির ভ্রুকুটি, আকাশ অংশত মেঘলা শহরে ]

রাজ্যে শাসকদল প্রার্থীতালিকা প্রকাশ করে দিয়েছে। কার্যত প্রচারেও নেমে পড়েছেন তৃণমূল প্রার্থীরা। তাই আর সময় নষ্ট করতে নারাজ গেরুয়া শিবির। কাল শনিবার পশ্চিমবঙ্গের প্রথম দফার প্রার্থীতালিকা প্রকাশ করতে পারে বিজেপি। সেক্ষেত্রে উত্তরবঙ্গের আসনগুলির প্রার্থীদের নাম প্রথম তালিকায় প্রকাশ করা হবে। সূত্রের খবর, আজ দিল্লিতে দলের সংসদীয় কমিটির বৈঠক রয়েছে। সেখানেই সারা দেশে প্রথম দফার তালিকার প্রার্থীদের নামে চূড়ান্ত শিলমোহর দেবেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। এদিকে, দিল্লির বৈঠকে অমিত শাহ দলের বঙ্গ নেতাদের স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছেন, জেতার ক্ষমতা রয়েছে তাদেরই প্রার্থী করা হবে। অর্থাৎ, বাছবিচার পরে৷ যার জেতার ক্ষমতা রয়েছে তাকেই প্রার্থী করা হবে। সে বিরোধী দলেরই হোক না কেন।

[ভুয়ো ওয়েবসাইটে চাকরির টোপ, বধূর অ্যাকাউন্ট থেকে উধাও ২ লক্ষ টাকা]

বৃহস্পতিবারও দিল্লিতে কৈলাস বিজয়বর্গীয়র হাত ধরে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং। তৃণমূল এবং কংগ্রেস থেকে আরও একাধিক ব্যক্তি যোগদান করবে বলে দাবি বিজেপি নেতৃত্বের। তৃণমূল-সহ সিপিএম ও কংগ্রেস থেকে নতুন যাঁরা গেরুয়া শিবিরে যোগ দিচ্ছেন তাঁদের নিয়ে খুব শীঘ্রই কলকাতায় বৈঠকে বসবে রাজ্য বিজেপির নির্বাচনী কমিটি। এদিকে, বৃহস্পতিবার রাতেই দিল্লি থেকে কলকাতায় ফেরেন মুকুল রায়। মুকুলের সঙ্গে ফেরার কথা থাকলেও অর্জুন সিং ফেরেননি কলকাতায়। বিমানবন্দরে অর্জুন অনুগামীরা হাজির হয়েছিলেন। না ফেরায় হতাশ হন তাঁরা। বৃহস্পতিবার কলকাতায় কৈলাস বিজয়বর্গীয়র উপস্থিতিতে রাজ্য বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব বৈঠক করেন। রাত পর্যন্ত চলা এই বৈঠকে দলের প্রার্থী তালিকা নিয়ে আলোচনা হয় বলে খবর।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং