BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘সহবাসের অভিযোগ মিথ্যে’, দলের নেত্রীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলার সিদ্ধান্ত বিজেপি নেতার

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: July 3, 2020 9:54 am|    Updated: July 3, 2020 9:54 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস ও ধর্ষণের অভিযোগ প্রসঙ্গে অবশেষে মুখ খুললেন দক্ষিণ কলকাতার বিজেপি সভাপতি সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় (Somnath Bandhopadhyay)। তাঁর দাবি, তরুণীর অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। সমস্তটাই রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। অভিযোগকারিণীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করবেন বলেও এদিন জানিয়েছেন অভিযুক্ত বিজেপি নেতা।

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার। ওইদিন দক্ষিণ কলকাতার বিজেপি (BJP) সভাপতি সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে হরিদেবপুর থানায় বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস ও ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন বিজেপির টিচার সেলের সদস্য এক তরুণী। ওই তরুণীর অভিযোগ ছিল যে, তাঁর স্বামী মারা যাওয়ার পর সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়েই নিউ আলিপুরের জ্যোতিষ রায় রোডের বাসিন্দা সোমনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্ক তৈরি করেন তাঁর সঙ্গে। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ২০১৫ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত একাধিকবার তরুণীর সঙ্গে সহবাসও করেন ওই বিজেপি নেতা। ধর্ষণও করেন বলে অভিযোগ তরুণীর। শুধু তাই নয়, বিভিন্ন সময় তরুণীর থেকে ৫০ হাজার টাকাও নেন অভিযুক্ত। যা ফেরত চাইতেই হুমকির মুখে পড়তে হয় অভিযোগকারিণীকে। পরবর্তীতে বিয়ের জন্য চাপ দিতেই পুরোপুরি বেঁকে বসে সোমনাথ। একাধিকবার আলোচনার মাধ্যমে মীমাংসার চেষ্টা করেও কোনও লাভ হয় না। এরপরই পুলিশের দ্বারস্থ হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তরুণী।

[আরও পড়ুন: একে শরীরে বিরল রোগ, তাতে করোনার ছোবল, জোড়া যুদ্ধে জয়ী কলকাতার সত্তরোর্ধ্ব বৃদ্ধ]

এই অভিযোগ প্রকাশ্যে আসতেই অভিযুক্ত বিজেপি নেতার সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। প্রথমে তিনি কিছু না বললেও পরবর্তীতে জানান যে, তরুণীর অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। ওই বিজেপি নেতার কথায়, তিনি এখন দক্ষিণ কলকাতার সভাপতি হয়েছেন বলেই তাঁর বিরুদ্ধে যড়যন্ত্র করা হচ্ছে। পাশাপাশি, এদিন তিনি বলেন, অভিযোগকারিণীর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করা হবে। প্রসঙ্গত, ওই তরুণী জানিয়েছেন, FIR করার পর বারবার ফোনে তাঁকে হুমকি দেওয়া হচ্ছে। রীতিমতো আতঙ্কিত তিনি।

[আরও পড়ুন: করোনার কাঁটা, বাতিল কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পরীক্ষা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement