BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

লকডাউনে স্কুলগুলোতে ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদ, বিকাশ ভবনের সামনে বিক্ষোভে লকেট, সায়ন্তন

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 15, 2020 2:09 pm|    Updated: June 15, 2020 3:13 pm

BJP protests against fees hike in the schools during lockdown

কলহার মুখোপাধ্যায়, বিধাননগর: লকডাউনের (Lockdown) সময়ে বেসরকারি স্কুলগুলিতে অযথা বাড়তি ফি নেওয়া যাবে না। রাজ্য সরকারের এই পরামর্শ অমান্য করার অভিযোগে বেশ কয়েকটি স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই বিক্ষোভ দেখিয়েছেন অভিভাবকরা। এবার তাকে ইস্যু করেই রাজ্যের বিরুদ্ধে নতুন করে প্রতিবাদে শামিল বঙ্গ বিজেপি।

আজ দুপুরে সল্টলেকে বিকাশ ভবনের সামনে বিজেপি শিক্ষক সেলের বিক্ষোভ কর্মসূচিতে যোগ দিলেন সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়, রাজ্য সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। সোশ্যাল ডিসট্যান্স মেনে চলল অবস্থান বিক্ষোভ। এই সংক্রান্ত পাঁচ দফা দাবি নিয়ে শিক্ষাদপ্তরে একটি ডেপুটেশন পেশ করে বিজেপি প্রতিনিধি দল।

[আরও পড়ুন: করোনা সংক্রমণে চিন্তা বাড়াচ্ছে রাস্তায় পড়ে থাকা ব্যবহৃত মাস্ক, বৈঠকের ডাক পুরমন্ত্রীর]

করোনা, আমফান থেকে শুরু করে একাধিক বিষয়কে রাজনৈতিক হাতিয়ার করে রাজ্যের শাসকদলের বিরুদ্ধে অস্ত্রে শান দিচ্ছে বঙ্গ বিজেপি। লক্ষ্য অবশ্যই একুশের নির্বাচন। এবার সেই তালিকায় যোগ হল লকডাউনে বন্ধ থাকা সত্ত্বেও বেসরকারি স্কুলগুলিতে আগের মতোই মোটা অঙ্কের ফি নেওয়ার বিষয়টি। রাজ্য সরকার এ বিষয়ে স্রেফ পরামর্শ দিয়েই দায় এড়াচ্ছে, এই অভিযোগ তুলে সল্টলেকে শিক্ষা দপ্তরের সামনে বিধান রায়ের মূর্তির সামনে অবস্থান বিক্ষোভে শামিল হল বিজেপি শিক্ষক সেল। বৃষ্টি উপেক্ষা করে পূর্বঘোষিত কর্মসূচিতে যোগ দিলেন সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়, সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু, বিজেপি জেলা সভাপতি কিশোর কর এবং শিক্ষক সেলের অন্যান্য নেতানেত্রীরা। সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়ের বক্তব্য, “অভিভাবকরা নিজেরাই রোজগার করতে পারছেন না। তাঁরা স্কুলের বেতন দেবেন কী করে? অতিরিক্ত সহ-পাঠ্যক্রমিক ক্রিয়াকলাপের ফিজ নেওয়া হচ্ছে কেন স্কুল বন্ধ থাকা সত্ত্বেও? ফিজ বৃদ্ধির কথা বলে মুখ্যমন্ত্রী কথা ঘুরিয়ে দিচ্ছে। বর্তমানে যা ফিজ আছে, সেটা মকুব করা হোক শীঘ্রই। বেসরকারি স্কুলগুলো থেকে কি মমতা ও তার ভাইপোর কিছু স্বার্থ আছে, তাই জন্যেই কি পিসি-ভাইপো স্কুলের ফিজ মকুব করছে না? পার্থ চট্টোপাধ্যায় এতদিন ধরে নিজের বাড়ির মধ্যে প্রেস কনফারেন্স করেছে, মুখ্যমন্ত্রীর কথা বলছেন, কিন্তু অভিভাবকদের বক্তব্য শোনার সময় নেই। সরকার যদি ফিজ মুকুব না করে, তাহলে জেলায়-জেলায় এই আন্দোলন করা হবে।” 

[আরও পড়ুন: হতাশায় ভুগছেন? ১০০ ডায়াল করার পরামর্শ কলকাতা পুলিশ কমিশনারের]

পূর্বঘোষিত কর্মসূচি হলেও, এদিন কোনওরকম অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বিকাশ ভবনের সামনে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন করেছিল বিধাননগর কমিশনারেট। তবে বেলা ১২টা থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভে তেমন অশান্তি হয়নি। বিজেপি নেতৃত্ব অবস্থান থেকেই নিজেদের বক্তব্য রেখেছে। নেতাদের হুঁশিয়ারি, অবিলম্বে রাজ্যের স্কুলগুলি এই বাড়তি ফি মকুব না করলে আন্দোলন জারি থাকবে। এ ব্যাপারে রাজ্য সরকারকে আরও দায়িত্বশীল হওয়ার দাবিও তুলেছেন লকেট চট্টোপাধ্যায়, সায়ন্তন বসুরা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে