২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

পটাশপুরে মৃত বিজেপি কর্মীর ফের ময়নাতদন্ত, করতে হবে ভিডিওগ্রাফি, নির্দেশ কলকাতা হাই কোর্টের

Published by: Sayani Sen |    Posted: October 16, 2020 4:06 pm|    Updated: October 16, 2020 4:06 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ব্যুরো: জেলে থাকাকালীন অসুস্থ হয়ে বিজেপি (BJP) কর্মী মদনকুমার ঘোড়ইয়ের মৃত্যুর ঘটনার জল গড়াল কলকাতা হাই কোর্টেও (Calcutta High Court)। এই ঘটনায় দ্বিতীয়বার ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও হাই কোর্টের তরফে বলে দেওয়া হয়েছে, এসএসকেএম হাসপাতালে নয়। ময়নাতদন্ত হবে আরজি কর হাসপাতালে। ময়নাতদন্তের সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া ভিডিওগ্রাফি করতে হবে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট এবং ভিডিওগ্রাফি আগামী ২১ অক্টোবরের জমা দিতে হবে হাই কোর্টে।

ঠিক কী হয়েছিল? পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুর থানার কনকপুর গ্রামের বাসিন্দা যুবক কিশোর ঘোড়ই কয়েকমাস আগে বাসুদেরপুর এলাকার গৌরাঙ্গ পাখুরিয়ার যুবতীকে নিয়ে পালিয়ে যায়। আগে থেকে তাদের দু’জনের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলেই দাবি স্থানীয়দের। যুবতীর বাড়ি থেকে পটাশপুর থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করা হয়। ছেলেটির মা এই ঘটনার পর আত্মগোপন করেন। দীর্ঘ খোঁজাখুজি করেও মেলেনি মা, ছেলের খোঁজ। গত ২৬ সেপ্টেম্বর পুলিশ ওই যুবকের কাকা মদন কুমার ঘোড়ইকে পটাশপুর থানার পুলিশ তুলে নিয়ে যায়। আদালত তার জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়। জেল হেফাজতে থাকাকালীন অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে তাঁকে ভরতি করা হয়। সেখান থেকে কলকাতায় পাঠানো হয়। মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ খবর দেয় মদনবাবুর মৃত্যু হয়েছে। 

[আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা, বাড়ছে উদ্বেগ]

এই ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছেন সকলেই। পুলিশি অত্যাচার মদনবাবুর মৃত্যু হয়েছে বলেও অভিযোগ অনেকের। এ প্রসঙ্গে পটাশপুর ১ নম্বর ব্লক তৃণমূল সভাপতি তাপস মাঝি বলেন, “যুবক, যুবকের কাকা এবং তরুণীর পরিবার বিজেপি সমর্থক। পুলিশ নয় জেল হেফাজতে মারা গিয়েছেন ওই ব্যক্তি। তদন্ত হলে আসল সত্যি সামনে আসবে।”  শুক্রবার বিজেপি কর্মীর দেহ কলকাতায় আনা হয়। লকেট চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে নিহত বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ নিয়ে মিছিল হয়। সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে মিছিল আটকায় পুলিশ। প্রতিবাদে অবস্থান বিক্ষোভ করেন বিজেপি নেতাকর্মীরা। লকেট চট্টোপাধ্যায়ের (Locket Chatterjee) দাবি, “বিজেপি করার অপরাধে লকআপে পুলিশ পিটিয়ে মেরেছে মদনকুমার ঘোড়ইকে। পুলিশের বিরুদ্ধে এফআইআর ও মামলা করা উচিত।” এছাড়া এই ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবিও জানিয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: ‘বাংলা সিন্ডিকেট রাজ ও পুলিশি সন্ত্রাসের মুক্তাঞ্চল’, ফের টুইটে রাজ্যকে তোপ ধনকড়ের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement