Advertisement
Advertisement
CBI

অতিরিক্ত শূন্যপদের নেপথ্যে কারা? এসএসসি মামলায় CBI তদন্তের নির্দেশ বহাল হাই কোর্টের

বহাল থাকবে শিক্ষাসচিবকে হাজিরার নির্দেশও।

Calcutta HC stays CBI investigation on SSC recruitment scam | Sangbad Pratidin
Published by: Tiyasha Sarkar
  • Posted:November 24, 2022 5:00 pm
  • Updated:November 24, 2022 5:18 pm

রাহুল রায়: নিয়োগ মামলায় ফের হাই কোর্টে ধাক্কা খেল রাজ্য। অতিরিক্ত শূন্যপদের নেপথ্যে কারা, তার সন্ধানে সিবিআই তদন্তের নির্দেশের পাশাপাশি বহাল থাকবে শিক্ষাসচিবকে হাজিরার নির্দেশও, জানাল ডিভিশন বেঞ্চ। একজন সচিবকে তলবের নির্দেশকে কীভাবে চ্যালেঞ্জ করা যায়, তা নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করল আদালত।

এসএসসিতে সুপার নিউমেরারি পোস্ট বা অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি করে নিয়োগের জন্য, স্কুল সার্ভিস কমিশনের (SSC) আনা আবেদনের মামলায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় (Justice Abhijit Ganguly)। শুধু তাই নয়, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার মধ্যে জবাবদিহির জন্য রাজ্যের শিক্ষা সচিব মণীষ জৈনকে তলব করেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। কিন্তু শিক্ষাসচিবের হাজিরার সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ডিভিশন বেঞ্চে গেল রাজ্য। বুধবার রাতেই ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করা হয় রাজ্যের তরফে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: মোদির বৈঠকে যোগ দিতে ডিসেম্বরের শুরুতেই দিল্লি সফরে মুখ্যমন্ত্রী, যাবেন রাজস্থান ও মেঘালয়েও]

বৃহস্পতিবার দুপুরে সেই মামলায় ডিভিশন বেঞ্চে বড়সড় ধাক্কা খেল রাজ্য। গোটা বিষয়টি শোনার পর সিঙ্গল বেঞ্চের নির্দেশ বহাল থাকবে বলে জানিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ। গোটা ঘটনায় বিস্ময় প্রকাশ করেছে আদালত। অতিরিক্ত শূন্যপদ তৈরি করে চাকরি দেওয়ার অর্থ, যাঁরা অনৈতিকভাবে চাকরি করছেন, তারাও কাজে বহাল থাকবেন। কমিশন কীভাবে অবৈধদের চাকরি দেওয়ার আবেদন করল, সেই প্রশ্ন ওঠে আদালতে। কেন এহেন আবেদন আদালতে জানানো হল, তা নিয়েও বিস্ময় প্রকাশ ডিভিশন বেঞ্চ। পাশাপাশি, সচিবকে তলবের নির্দেশকে কীভাবে চ্যালেঞ্জ করা যায়, সে বিষয়েও প্রশ্ন ওঠে। এদিনের শুনানির পর সিঙ্গল বেঞ্চের রায় বহাল রাখার নির্দেশ দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চ।   

Advertisement

উল্লেখ্য, বুধবার সুপার নিউমেরারি পোস্ট বা অতিরিক্ত শূন্যপদ মামলায় পর্ষদকে কার্যত তুলোধোনা করেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি নির্দেশ দেন, বৃহস্পতিবারই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে তদন্ত শুরু করতে হবে। ওই ‘সুপার নিউমেরারি’ পোস্ট কার মস্তিষ্কপ্রসূত সিবিআইকে তা খুঁজে বের করতে হবে। পাশাপাশি, কে বা কারা এই ‘বেনামি’ আবেদন করল তাও খুঁজে বের করে সিবিআইকে (CBI) এক সপ্তাহের মধ্যে রিপোর্ট পেশ করতে হবে। আদালতের পর্যবেক্ষণ, “এগুলি ‘বেনামি’ আবেদন।  

[আরও পড়ুন: ‘দুর্ভাগ্যজনক’, DA আন্দোলনে হাই কোর্ট কর্মীর গ্রেপ্তারিতে অসন্তুষ্ট বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ