BREAKING NEWS

১৪ কার্তিক  ১৪২৭  শনিবার ৩১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বাধা কাটছে দূরত্বের, নবান্ন থেকেই দুই বঙ্গের পুজোর ভারচুয়াল উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 13, 2020 9:57 pm|    Updated: October 13, 2020 9:59 pm

An Images

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: সশরীরে হাজির হয়ে পুজোমণ্ডপের দ্বার খুলে দেওয়া এ বছর অন্তত নয়। কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এমনই জানিয়ে দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। তবে কথা দিয়েছিলেন, ভারচুয়ালি (Virtual) পুজোর উদ্বোধন করবেন। যাঁরা মুখ্যমন্ত্রীকে দিয়ে নিজেদের পুজো উদ্বোধনের জন্য আবেদন জানাবেন, তাঁদের কথা রাখার চেষ্টা করবেন। সেইমতো এবছর শুধু কলকাতার পুজো নয়। জেলার বেশ কয়েকটি পুজোর দরজাও খুলে যাবে ভারচুয়ালি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতের ছোঁয়ায়, রিমোট কন্ট্রোলের উদ্বোধনে।

সূত্রের খবর, বুধবার নদিয়া-সহ উত্তরবঙ্গের মোট ১০ জেলার পুজো (Durga Puja) উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার দক্ষিণবঙ্গের বাকি ১২ জেলার পুজো উদ্বোধন। সবটাই নবান্নে (Nabanna) বসে বিকেলে ভারচুয়ালি উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী। মঙ্গলবার সব ক’টি জেলার জেলাশাসকের সঙ্গে ভারচুয়াল বৈঠক করে তার যাবতীয় আয়োজন সেরে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। ভারচুয়ালি পুজোর উদ্বোধন এই প্রথম হতে চলেছে রাজ্যে। ফলে উদ্বোধন পর্বের আগে কমিটিগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করে মহড়া হবে দুপুর ১২টা থেকে। তারপর বিকেল ৪টে থেকে ৫টার মধ্যে ভারচুয়াল উদ্বোধন পর্ব সম্পন্ন হবে।

[আরও পড়ুন: শুধু শুভেচ্ছাবার্তাই নয়, এবার বাংলার দুর্গাপুজোরও ভারচুয়াল উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী]

মুখ্যমন্ত্রী এই উদ্বোধনের একটা কৌশল আগেরদিন জানিয়েই রেখেছিলেন। বলেছিলেন, তিনি নিজে একটা প্রদীপ হাতে রাখবেন। উল্টোদিকে কমিটির তরফেও প্রদীপ হাতে তৈরি থাকবেন সেখানকার মেয়েরা। এরপরেই নির্দিষ্ট সময়ে  আনুষ্ঠানিকভাবে  পুজোর উদ্বোধন সূচিত হবে। বুধ, বৃহস্পতিবারের ভারচুয়াল উদ্বোধনে চাইলে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে নিজেদের মতামত বা বক্তব্য জানাতে পারবে পুজো কমিটিগুলো।

[আরও পড়ুন: মেট্রোর মতো লোকাল ট্রেন চালুর দাবি, মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি বাম ও কংগ্রেস নেতৃত্বের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement