BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পরিবারকে সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে ৩ দিন রাস্তায় কাটালেন করোনা আক্রান্ত, তারপর…

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 11, 2020 10:33 pm|    Updated: September 11, 2020 10:37 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

কলহার মুখোপাধ্যায়, বিধাননগর: পরিবারের মধ্যে সংক্রমণ যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সে কারণে তিন দিন তিন রাত রাস্তায় ঘুরে কাটালেন করোনা আক্রান্ত এক ব্যক্তি। শেষ পর্যন্ত বিধায়ক তথা মন্ত্রী সুজিত বসুর (Sujit Basu) উদ্যোগে তাঁকে হাসপাতালে ভরতির ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনদিন বেপাত্তা থাকার পর শুক্রবার ওই আক্রান্ত ফোনে তাঁর ভাইকে অসুস্থতার কথা জানান। তারপর মন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করে ওই ব্যক্তির পরিবার। শেষমেশ মন্ত্রীর হস্তক্ষেপে ওই করোনা আক্রান্তকে খুঁজে বের করে তাঁকে হাসপাতালে ভরতির ব্যবস্থা করা হয়। তিনি একটি নির্মীয়মান বাড়িতে গা ঢাকা দিয়ে থাকছিলেন এই ক’দিন।

আক্রান্ত ব্যক্তি সল্টলেকে একটি শপিং মলের বাইরে গাড়ি পার্কিংয়ের কাজ করেন। তিনদিন ধরে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন না তিনি। তাঁকে হাসপাতালে ভরতি করতে উদ্যোগ নেন সল্টলেক দত্তাবাদ অঞ্চলের কাউন্সিলর নির্মল দত্ত। দত্তাবাদেই নির্মীয়মান একটি বাড়িতে একপ্রকার লুকিয়ে তিনদিন কাটিয়েছেন আক্রান্ত। শুক্রবার তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভরতির ব্যবস্থা করা হয়। স্থানীয় সূত্রে খবর শারীরিক অসুস্থতার কারণে তিনি করোনা পরীক্ষা করান। পজিটিভ রিপোর্ট আসে তিনদিন আগে। আক্রান্ত হওয়ার পর নিজের বাড়ি ফিরতে চাননি মধ্যমগ্রামের ওই বাসিন্দা। তাঁর মোবাইলে যোগাযোগ করতে পারেনি পরিবার। শেষ পর্যন্ত ফিরে পাওয়ার পর পরিবারের তরফে মন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করা হয় শুক্রবার। তারপর খুঁজে বের করা হয় ওই ব্যক্তিকে।

[আরও পড়ুন: নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ চত্বরে ১৯ ঘন্টা ঘুরে বেড়ালেন করোনা রোগী!]

শুক্রবার বিধাননগর পুরনিগমের অ্যাম্বুল্যান্সে করে আক্রান্তকে হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি। তাঁর পরিবারের তরফে বলা হয়েছে, এদিন সকালে মোবাইলে ফোন করে ভাইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেন আক্রান্ত। তিনি ক্রমশ আরও বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বলে ভাইকে জানান। তারপর মন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়।

[আরও পড়ুন: প্রতারণা চক্রের জালে অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মী, ১০ টাকা দিতে গিয়ে দশ লাখ খোয়ালেন বৃদ্ধা!]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement