BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মাস্ক না পরে বাজারে, বারণ করায় হাওড়ায় সিভিক ভলান্টিয়ারের সঙ্গে হাতাহাতি মহিলার

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: April 19, 2020 3:18 pm|    Updated: April 19, 2020 3:18 pm

An Images

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: একদিকে যখন রাজ্যে সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত জেলায়। প্রশাসনের চিন্তা বাড়িয়েছে রেড জোনে অন্তর্ভুক্তিকরণ। সেখানেই হাওড়ার এক মহিলার আচরণ কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলল পুলিশের। রাস্তায় বেরিয়ে মুখে মাস্ক নেই কেন জানতে চাওয়ায় সিভিক ভলান্টিয়ারের সঙ্গে বচসা এবং পরে হাতাহাতি করলেন কালীবাবুর বাজার এলাকার ওই মহিলা। পরে পুলিশ এসে তাঁকে আটক করে নিয়ে যায়। যেখানে জেলায় কঠোরভাবে লকডাউন পালনের জন্য জনতাকে আবেদন করছে প্রশাসন, সেখানে এক মহিলার নির্বুদ্ধিতার উদাহরণ দেখে অবাক স্থানীয়রা।

জানা গিয়েছে, হাওড়া থানা এলাকার কালীবাবুর বাজার এলাকার বাসিন্দা সারিকা মাইতি নামে ওই মহিলা রবিবার বাজারে এসেছিলেন। তাঁর মুখে মাস্ক ছিল না। স্থানীয় মহিলা সিভিক ভলান্টিয়াররা তাঁকে মাস্ক না পরে বেরোননি কেন জানতে চাইলে তাঁর সঙ্গে বচসা বাধে। এরপরই হাতাহাতি বেধে যায়। মহিলার বক্তব্য, প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতেই বাজারে এসেছিলেন তিনি। কিন্তু মাস্ক ব্যবহার করার কথা বলতেই বাধে বচসা। হাতাহাতি চরমে পৌঁছনো পর স্থানীয়রা এসে পরিস্থিতি সামাল দেন। এরপর হাওড়ার থানার পুলিশ এসে মহিলাকে আটক করে নিয়ে যায়।

[আরও পড়ুন: করোনায় ‘রেড জোন’ হাওড়ায় লকডাউন সফল করতে মরিয়া প্রশাসন, তবু নিয়ম ভাঙা চলছেই]

একদিকে যেমন এরকম চিত্র, অন্যদিকে হাওড়ার সালকিয়ায় দায়িত্বশীল নাগরিকদের ছবি দেখা গেল এদিন। এদিন সালকিয়ার চৌরাস্তা থেকে বেনারস রোড পর্যন্ত রুট মার্চ করতে দেখা যায় পুলিশকে। হাওড়াকে রাজ্য প্রশাসন সুপার হটস্পট ঘোষণার পর বাড়তি নজরদারি শুরু হয়েছে জেলাজুড়ে। তারই অংশ হিসাবে এদিন হাওড়ার বিভিন্ন অঞ্চলে রুট মার্চ করেন পুলিশ আধিকারিক ও কর্মীরা। সালকিয়ায় পুলিশকে দেখে বাড়ির বারন্দা, জানলা থেকে সাধারণ মানুষ করতালি দিয়ে উৎসাহ দেন। কেউ কেউ পুলিশকর্মীদের দিকে জলের গ্লাস বাড়িয়ে দেন। পুলিশও প্রত্যেককে আবেদন করে, ঘরে থাকার জন্য ও বাড়ির বাইরে না বেরনোর জন্য। অনেকেই ‘ভারত মাতা কি জয়’ বলে পুলিশকে ধন্যবাদ জানান।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement