BREAKING NEWS

১৫ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৯ মে ২০২০ 

Advertisement

করোনার ভয়ে হেঁশেলে বাতিল চিকেন, মাথায় হাত কলকাতার মুরগি বিক্রেতাদের     

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: February 29, 2020 1:57 pm|    Updated: February 29, 2020 1:57 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের হামলায় বিপর্যস্ত বিশ্বের অর্থনীতি।ধস নেমেছে ভারতের শেয়ার বাজারেও। এ দেশে সংক্রমণ না ছড়ালেও ক্রমে ছড়িয়ে পড়ছে নানা গুজব। আর এই ভুয়ো খবরের জেরে মাথায় হাতায় কলকাতার মুরগির মাংস বিক্রেতাদের। 

[আরও পড়ুন: একদিনেই শেয়ার বাজার থেকে উধাও ৫.৫৩ লক্ষ কোটি, বিপুল ক্ষতি আম্বানির]

জানা গিয়েছে, করোনা সংক্রান্ত গুজবের জেরে মুরগির মাংসের বিক্রি ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ কমে গিয়েছে। বিক্রেতার বলছেন, এহেন গুজবের কোনও মানেই হয় না। এর কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। কিন্তু শত চেষ্টা সত্ত্বেও ক্রেতাদের এই কথা বোঝানো যাচ্ছে না। মুরগি থেকে করোনা ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই। সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে তাই হেঁশেলে চিকেনের পদ বাতিল করেছেন অনেকেই। রোজকার খদ্দের হাতছাড়া হয়ে যাওয়ায় বিক্রিবাট্টা তলানিতে এসে থেকেছে। 

সংবাদমাধ্যমের কাছে পশ্চিমবঙ্গ পোল্ট্রি ফেডারেশনের ডেনারেল সেক্রেটারি মদন মোহন মাইতি জানান, গত পাঁচ দিনে মুরগির মাংসের বিক্রি প্রায় ৪০ শতাংশ কমেছে। তার সঙ্গে দামও কমেছে প্রায় ২০ থেকে ৩০ শতাংশ। গুজবের ফলে ডিম এবং মাংস বিক্রিতে যে ভাঁটা পড়েছে তার কারণে ৩০০ কোটি টাকার মতো ক্ষতি হতে চলেছে। পরিস্থিতি শীঘ্রই নিয়ন্ত্রণে না আনলে ব্যবসায় আরও ধস নামতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।    

উল্লেখ্য, বিশ্বের প্রায় ৫০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাস। শুধুমাত্র চিনেই মৃত্যু হয়েছে আড়াই হাজারেরও বেশি মানুষের। আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৭ হাজার ৬৫৮ জন। অন‌্যদিকে দক্ষিণ কোরিয়ায় এই মারণ ভাইরাসের বলি হয়েছেন ১১ জন। নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দুই ইটালীয় নাগরিকের মৃত্যুর পর অন্তত ৫০ হাজার নাগরিককে গৃহবন্দি করে ফেলেছে সে দেশ। এদিকে, ভারতীয় উপমহাদেশে উদ্বেগ বাড়িয়ে গত বুধবার পাকিস্তানে দুই ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে সে দেশ। সব মিলিয়ে চিনে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসলেও, বিশ্বে ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ছে এই মারণ রোগ।  

[আরও পড়ুন: আবার পতন! সাত বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন দেশের জিডিপি বৃদ্ধির হার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement