BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রাজ্যে ICMR ও WHO’র গাইডলাইন মানা হচ্ছে কিনা জানতে রিপোর্ট তলব হাই কোর্টের

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: April 16, 2020 9:32 pm|    Updated: April 16, 2020 9:32 pm

An Images

শুভঙ্কর বসু: করোনা সংক্রমণ নিয়ে রাজ্য সরকার সঠিক তথ্য দিচ্ছে না। পাশাপাশি রোগ মোকাবিলায় ঘাটতি রয়েছে পরিকাঠামোতেও। এমন অভিযোগে জোড়া জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছিল কলকাতা হাই কোর্টে। সেই মামলায় রাজ্যের কাছে রিপোর্ট তলব করল প্রধান বিচারপতি টি বি রাধাকৃষ্ণনের ডিভিশন বেঞ্চ। বৃহস্পতিবার জরুরি ভিত্তিতে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে মামলার শুনানি হয়।

শুনানির শুরুতেই করোনা রোধে আপাতত কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তা নিয়ে একটি রিপোর্ট পেশ করেন রাজ্য স্বাস্থ্যদপ্তরের প্রধান সচিব ডা. সৌমিত্র মোহন। কিন্তু মামলাকারী চিকিৎসক ফুয়াদ হালিমের আইনজীবী বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য দাবি করেন, রাজ্য সরকার ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর) এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) গাইডলাইন মেনে কাজ করছে না। পাশাপাশি আপাতত রাজ্যে কতজনের দেহে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়েছে বা এই মারণ ভাইরাসে এখনও অবধি কত জনের মৃত্যু হয়েছে তা নিয়েও রাজ্যের রিপোর্টে বিভ্রান্তি রয়েছে। এরপরই আইসিএমআর ও WHO’র গাইডলাইন অনুযায়ী করোনা ভাইরাস থাকাতে রাজ্যে আপাতত কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে সেই সংক্রান্ত একটি সুনির্দিষ্ট রিপোর্ট রাজ্যকে জমা দেওয়ার নির্দেশ দেয় ডিভিশন বেঞ্চ। শুক্রবার ফের মামলা শুনানি। যদিও এদিন ভিডিও বার্তার সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ায় নিজের বক্তব্য পেশ করতে পারেননি রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত। শুক্রবার এ বিষয়ে তিনি রাজ্যের পদক্ষেপের কথা বিস্তারিত জানাবেন বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে খাদ্যবণ্টন নিয়ে ক্ষোভ, খাদ্য দপ্তরের নতুন সচিব নিয়োগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী]

করোনা নিয়ে যে জনস্বার্থ মামলা গুলির দায়ের হয়েছিল তার আবেদনে বলা হয়, এখনও পর্যন্ত করোনায় রাজ্যে ঠিক কত জন আক্রান্ত, সে বিষয়ে সঠিক তথ্য প্রকাশ হওয়া প্রয়োজন । পাশাপাশি সংক্রমণে কারও মৃত্যু হলে তাঁর অন্ত্যেষ্টির বিষয়ে গাইডলাইন মানা হচ্ছে কিনা সে বিষয়েও তথ্য প্রয়োজন। এছাড়াও দারিদ্রসীমার নিচে বসবাসকারীদের কাছে সরকারি ত্রাণ ঠিকমতো পৌঁছচ্ছে না এবং বসতি এলাকায় করোনা নিয়ে যথাযথ প্রচার হচ্ছে না বলেও মামলায় দাবি করা হয় ৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement