৩ শ্রাবণ  ১৪২৬  শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এনআরএস হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তারদের নিগ্রহকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে রাজ্য তথা জাতীয় চিকিৎসক মহলে৷ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজ্য সরকারের সঙ্গে চূড়ান্ত প্রতিরোধের জায়গায় পৌঁছে গিয়েছেন জুনিয়র চিকিৎসকরা৷

সন্ধ্যা ৬.৩৫ মিনিট: ‘‘আমাদের আন্দোলন চলবে৷ মুখ্যমন্ত্রী আমাদের সঙ্গে কথা বলতে চাননি৷ উনি মিথ্যা কথা বলছেন৷ আমাদের তরফ থেকে কেউ মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যায়নি৷  আমাদের যা বক্তব্য, আমরা লিখিত ভাবে জানাব’’, মুখ্যমন্ত্রীর সাংবাদিক সম্মেলনের প্রতিক্রিয়ায় এমনই জানালেন এনআরএস হাসপাতালে আন্দোলনরত জুনিয়র চিকিৎসকরা৷ 

সন্ধ্যা ৬.২০ মিনিট: স্বাস্থ্য পরিষেবায় তৈরি হওয়া জট কাটাতে ফের তৎপর রাজভবন৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি দিলেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী৷ এনআরএস কাণ্ডে দ্রুত সমাধান খোঁজার কথা বলা হয়েছে উক্ত চিঠিতে৷ এমনই খবর রাজভবন সূত্রে৷   

সন্ধ্যা ৬.০০ মিনিট:  ‘কোনও প্ররোচনায় পা দেবেন না৷ রাজ্য সরকার স্থায়ী সমাধান চায়’, জুনিয়র চিকিৎসকদের কাজে যোগ দেওয়ার আবেদন করে এমনই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি জানান, ‘‘সরকারে তরফে যথেষ্ট ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে৷ পরের দিনই চন্দ্রিমাকে পাঠানো হয়েছে৷ আমি কথা বলতে চেয়েছি, ওরা বলেনি৷ অসম্মান করা হয়েছে আমাকে৷ তারপরেও আমরা আপিল করেছি৷ কিন্তু তাও কোনও কাজ হয়নি৷ আমি নিজে পিজিতে যাই৷ সেখানে আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করা হয়েছে৷ আমার বিরুদ্ধে অশ্রাব্য ভাষার ব্যবহার করা হয়েছে৷ ধাক্কা দেওয়া হয়েছে৷ তাও কাউকে গ্রেপ্তার করিনি৷ কাল আমরা পাঁচ ঘণ্টা অপেক্ষা করি৷ ওরা জানিয়েছিল আজ আসবে৷ কিন্তু আসেনি৷ অন্য রাজ্য হলে, পরিস্থিতি অন্যরকম হত৷’’  মুখ্যমন্ত্রীর সাংবাদিক সম্মেলন চলাকালীনই নবান্নে আসে দশজন জুনিয়র চিকিৎসক৷ মুখ্যমন্ত্রী জানান, ‘‘ওঁরা কাজে যোগ দিতে চায়, তাই এসেছিল৷’’ তবে সাক্ষাৎকারীরা এনআরএস হাসপাতালের কিনা, সেই বিষয়ে উত্তর দিতে চাননি৷    

বিকাল ৫.৫০ মিনিট: ভেস্তে গেল পাঁচ সিনিয়র চিকিৎসকের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বৈঠক৷ মিলল না কোনও সমাধান সূত্র৷ বৈঠক থেকে বাইরে এসে চিকিৎসকরা জানালেন, তাঁরা মধ্যস্থতাকারী হিসাবে কাজ করতে চাইলেও, তা সম্ভব হয়নি৷ জুনিয়র চিকিৎসকরা নবান্নে এসে বৈঠকে নারাজ৷ ফলে তাঁরা ব্যর্থ৷   

বিকাল ৫.৩১ মিনিট: স্বাস্থ্য পরিষেবায় জট থুলতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকে অবশেষে নবান্নে এলেন পাঁচ সিনিয়র চিকিৎসক৷ শনিবার সন্ধ্যা ছ’টায় সাংবাদিক সম্মেলন করবেন মুখ্যমন্ত্রী৷ 

বিকাল ৪.৪৫ মিনিট: ফের সিনিয়র চিকিৎসকদের নবান্নে বৈঠকে ডাক মুখ্যমন্ত্রীর৷ সূত্রের খবর, এবার বৈঠকে যোগ দিতে নবান্নে যাবেন পাঁচ সিনিয়র চিকিৎসককের প্রতিনিধি দল৷ যদিও আগে যাবেন না বলেই জানিয়েছিলেন তাঁরা৷ বলেছিলেন, যাবেন না৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এনআরএস হাসপাতালে এসে তাঁদের সঙ্গে বৈঠক করতে হবে৷ তবেই সমস্যার সমাধান সূত্র মিলবে৷ কিন্তু অবশেষে মুখ্যমন্ত্রীর আবারও তাঁদের আমন্ত্রণ করায়, এবার নবান্নে বৈঠক করতে যাচ্ছেন তাঁরা৷   

[ আরও পড়ুন: হাড় ঢুকেছে পরিবহর করোটিতে, চিরতরে বাদ সাঁতার-ড্রাইভিং ]

বিকাল ৪.০০ মিনিট: স্বাস্থ্যক্ষেত্রে অচলাবস্থা কাটাতে নবান্নে শুরু উচ্চপর্যায়ের বৈঠক৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকে রয়েছেন মুখ্যসচিব মলয় দে, স্বাস্থ্য সচিব রাজীব সিনহা, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য ও কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা৷

দুপুর ৩.৩৫ মিনিট: এনআরএস কাণ্ডে তৈরি হওয়া অচলাবস্থা কাটাতে নবান্নে যাচ্ছেন না সিনিয়র চিকিৎসকদের প্রতিনিধিরা৷ শনিবার বিকাল পাঁচটায় নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের  সঙ্গে বৈঠক করার কথা ছিল পাঁচ সিনিয়র চিকিৎসকের একটি প্রতিনিধি দলের৷ কিন্তু চিকিৎসকরা স্পষ্ট জানিয়েছেন, তাঁরা যাবেন না৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এনআরএস হাসপাতালে এসে তাঁদের সঙ্গে বৈঠক করতে হবে৷ তবেই সমস্যার সমাধান সূত্র মিলবে৷   

দুপুর ৩.০০ মিনিট: এনআরএস কাণ্ডে চিকিৎসকদের কর্মবিরতি নিয়ে রিপোর্ট তলব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের৷ আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ফের রাজ্য সরকারকে পাঠানো হল অ্যাডভাইজারি৷ এবং এই ইস্যুতে রিপোর্টও চেয়ে পাঠান হয়েছে মন্ত্রকের তরফে৷

[ আরও পড়ুন: ওদের কী দোষ? প্রশাসন-ডাক্তারদের ‘ইগো’র লড়াইয়ে পিষ্ট রোগীরা ]

দুপুর ২.৩০ মিনিট: এনআরএস কাণ্ডের জের, মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজে গণ ইস্তফা চিকিৎসকদের৷ একসঙ্গে ইস্তফা দিলেন ১০জন চিকিৎসক৷  

দুপুর ২.১৫ মিনিট: অচলাবস্থা কাটাতে ফের বৈঠকে বসছেন সিনিয়র চিকিৎসকরা৷ শনিবার নবান্নে বৈঠকে বসছেন তাঁরা৷ 

দুপুর ১.৪৫ মিনিট: আইএমএ-র সর্বভারতীয় সভাপতির ‘বহিরাগত’ দাবিকে কেন্দ্র করে ফের উত্তপ্ত এনআরএস হাসপাতাল৷ জিবি বৈঠকের পর ফের বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছেন জুনিয়র চিকিৎসকরা৷ তাঁদের অভিযোগ, বহিরাগতর মিথ্যা তথ্য পেশ করেছেন তৃণমূল সাংসদ তথা আইএমএ-র সর্বভারতীয় সভাপতি শান্তনু সেন৷ এছাড়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আন্দোলনরত ডাক্তারদের বৈঠকে বসার জন্য নবান্নে ডেকে পাঠিয়েছেন৷ জিবি বৈঠকের পর চিকিৎসকরা জানান, ‘‘গত কয়েকদিন ধরে মুখ্যমন্ত্রী যে ভাষা ব্যবহার করেছেন, তা অনভিপ্রেত৷ মুষ্টিমেয় প্রতিনিধিকে নিয়ে নবান্নে বন্ধ দরজার পিছনে বৈঠক করাটা কতটা কার্যকর হবে তা নিয়ে আমরা ধন্দে রয়েছি৷ ফলে আমরা কেউ নবান্নে যাচ্ছি না৷ মুখ্যমন্ত্রী এখানে এসে আমাদের সঙ্গে কথা বলুন৷’’ 

দুপুর ১.৩০ মিনিট: ঘটনার পাঁচদিনের মাথায় অবশেষে এনআরএস কাণ্ডে আক্রান্ত ইন্টার্ন চিকিৎসককে দেখতে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শনিবার ইনস্টিটিউট অফ নিউরোসায়েন্স কলকাতাতে ভরতি পরিবহ মুখোপাধ্যায়কে দেখতে যাচ্ছেন তিনি৷ ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা, এনআরএস কাণ্ডকে কেন্দ্র করে গত পাঁচদিন ধরে রাজ্য তথা জাতীয় স্তরের স্বাস্থ্য পরিষেবায় যে অচলাবস্থা শুরু হয়েছে, এবার হয়তো তা শেষ হবে৷ মুখ্যমন্ত্রীর এই পদক্ষেপ কোনও সমাধান সূত্রে বের করবে৷

[ আরও পড়ুন:  অকারণেই ডাক্তারবাবুকে মার! মুর্শিদাবাদের অভিজ্ঞতা নিয়ে কলকাতায় প্রত্যক্ষদর্শী  ]

দুপুর ১.০০ মিনিট: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘বহিরাগত’ তথ্যতেই সিলমোহর দিলেন তৃণমূল সাংসদ তথা আইএমএ-এর সর্বভারতীয় সভাপতি শান্তনু সেন৷ তিনিও জানালেন, এনআরএস কাণ্ডকে ঘিরে যে বিক্ষোভ তৈরি হয়েছে তাতে ইন্ধন দিচ্ছে প্রেসিডেন্সি ও যাদবপুরের বহিরাগতরা৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং