BREAKING NEWS

১৯  আষাঢ়  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৫ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘স্বাভাবিক ঘটনা’, নাড্ডার ছেলের বিয়েতে গুরুংয়ের উপস্থিতি নিয়ে সাফাই দিলীপের

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: March 8, 2020 2:03 pm|    Updated: March 8, 2020 2:03 pm

Dilip Ghosh opens up on Bimal Gurung-Roshan Giri

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দলের সর্বভারতীয় সভাপতির ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানে পুলিশের খাতায় ‘ফেরার’ বিমল গুরুং ও রোশন গিরির উপস্থিতি নিয়ে রাজনৈতিক তরজা অব্যাহত। এবার এই ইস্যুতে মুখ খুললেন বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। বললেন, এতে অস্বস্তির কিছুই নেই। অনুষ্ঠানে জোটসঙ্গী হিসাবে আমন্ত্রিত ছিলেন বিমল-রোশন। আরও অনেকেই আমন্ত্রিত ছিলেন। বিরোধী দলের সাংসদরাও এসেছিলেন। এটাই তো স্বাভাবিক। দিলীপের মন্তব্যের পর নয়া জল্পনার সৃষ্টি হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। তবে কি বিজেপির ছত্রছায়াতেই রয়েছে একদা পাহাড়ের ‘বেতাজ বাদশা’ বিমল গুরুং ও তার সহযোগী রোশন গিরি? উঠছে প্রশ্ন।

প্রসঙ্গত, শুক্রবারই ছিল জেপি নাড্ডার ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠান। সেই অনুষ্ঠানেই দেখা গিয়েছে বিমল-রোশনকে। একেবারে নবদম্পতি ও নাড্ডার পাশে দাঁড়িয়ে হাসিমুখে ছবি তুলছিল তারা। যদিও সেই ছবির সত্যতা যাচাই করেনি সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল। পুলিশের খাতায় দীর্ঘদিন ফেরার বিমল গুরুং ও রোশন গিরি। পাহাড়ে অশান্তি ছড়ানো, খুন, হিংসার শতাধিক মামলা দায়ের রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। ফেরার থাকলেও মাঝে মধ্যেই নেপালি চ্যানেলের মাধ্যমে পাহাড়ে বিমল ভিডিও বার্তা ছড়িয়েছে। গত লোকসভা নির্বাচনেও উন্নয়নের স্বার্থে বিজেপিকে ভোট দেওয়ার আবেদন করেছিল প্রাক্তন মোর্চা সুপ্রিমো। বেশ কয়েকবার গুরুং ফিরছে বলে পাহাড়ে পোস্টারও পড়েছিল। কিন্তু সশরীরে দেখা দেয়নি গুরুং। তেমনই টিকি খুঁজে পাওয়া যায়নি রোশনের।

[আরও পড়ুন: নাড্ডার ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানে হাজির ‘ফেরার’ বিমল-রোশন, ছবি ঘিরে পাহাড়ে চাঞ্চল্য]

এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের সাফাই, ‘এতে অস্বস্তি হওয়ার কী আছে? যে কেউ যার নামে কেস দিয়েছে। আমাদের দলের সাংসদদের নামে শ্লীলতাহানির মামলাও দিতে পারে। মামলা দিয়ে কারও চরিত্র বিশ্লেষণ হয় না। বিমল গুরুং আমাদের জোটসঙ্গী। দলের নেতার অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত হবেন, এটাই তো স্বাভাবিক। সব বিরোধী নেতারাও ছিলেন। কংগ্রেসের দলনেতা অধীর চৌধুরিও ছিলেন অনুষ্ঠানে।’ একইসঙ্গে তিনি জানান, একই মামলায় অভিযুক্ত মোর্চা সভাপতি বিনয় তামাংও। তিনি তো সরকারি অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রীর পাশে বসে থাকেন। সরকারি পদেও রয়েছেন। তখন তো আলোচনা হয় না? প্রশ্ন মেদিনীপুরের সাংসদের।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে