BREAKING NEWS

১০ আষাঢ়  ১৪২৮  শুক্রবার ২৫ জুন ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

করোনা আবহে দুর্ভোগে সোনাগাছি, ওষুধ-অক্সিজেন-গোলাপি মাস্ক বিলি করবেন স্বেচ্ছাসেবকরা

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: June 6, 2021 10:03 pm|    Updated: June 6, 2021 10:03 pm

Disha for Cancer organization will distribute masks, medicine, PPE kit in Red Light Area | Sangbad Pratidin

অভিরূপ দাস: মাস্ক আটকাবে বাতাসে ভেসে বেড়ানো ভাইরাস। ঠেকাবে করোনা (Covid-19)। আবার গোলাপি রঙ যে স্তন ক্যানসার সচেতনতারও। এক ঢিলে দুই পাখি। ‘ওয়ার্ল্ড ক্যানসার সারভাইভার ডে’ (World Cancer Surviver Day) উপলক্ষে সোমবার কলকাতার (Kolkata) সোনাগাছির যৌনকর্মীদের হাতে গোলাপি মাস্ক তুলে দেবে ‘দিশা ফর ক্যানসার’।

করোনার প্রথম ঢেউয়ে ধাক্কা খেয়েছিল তাঁদের রোজগার। দীর্ঘ লকডাউনে কেউই আসেননি পতিতাপল্লিতে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুধুমাত্র রোজগারে নয় কেড়ে নিয়েছে সোনাগাছির স্বজন, বিশিষ্ট চিকিৎসক ও এইচআইভি গবেষক ডা. স্মরজিৎ জানাকে। যৌনকর্মীদের কল্যাণে গঠিত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন দুর্বার মহিলা সমন্বয় সমিতির প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন তিনি। এমতাবস্থায় চরম কষ্টে দিন কাটছে এখানকার বাসিন্দাদের। গাদাগাদি ঠাসাঠাসি করেই এই এলাকার অলিতে গলিতে থাকেন যৌনকর্মীরা। করোনা আবহে তাঁদের কপালে ভাজ। ‘দিশা ফর ক্যানসারে’র পক্ষ থেকে চিকিৎসক অগ্নিমিতা গিরি সরকার জানিয়েছেন, নানান ওষুধের অভাব রয়েছে এই এলাকার বাসিন্দাদের। আজ সোমবার সেগুলোই বন্টন করা হবে। দেওয়া হবে পিপিই কিটও। পতিতাপল্লির কেউ অসুস্থ হলে যাতে তাঁর শুশ্রূষা করতে কোনও অসুবিধা না হয়, সে কারণেই পিপিই কিট দেওয়া হবে এলাকায়। এছাড়াও অক্সিজেন ক্যানও দেওয়া হবে সোমবার।

[আরও পড়ুন: করোনা পরিস্থিতিতে মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিক হওয়া উচিত? আমজনতার মতামত চাইছে রাজ্য]

সংস্পর্শে বা কাছাকাছি আসলেও হতে পারে করোনা। প্রাণ বাঁচাবার তাগিদে আপাতত কোনও ঘরেই কাস্টমার নেই। যৌনকর্মীদের প্রশ্ন, রোজগার না থাকলে ওষুধ কিনব কি করে? জুন মাসের প্রথম রবিবার ‘ন্যাশনাল ক্যানসার সারভাইভার্স ডে’। করোনার বিধিনিষেধের কারণে রবিবার নয়, সোমবার এই দিনটি পালন হবে সোনাগাছিতে। মারণ ক্যানসার নিয়ে বিশেষ সচেতনতা শিবিরে ক্যানসার রোগ সম্পর্কে ভিভিন্ন তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি, তাঁদের এই রোগ নিয়ে সচেতন করবেন চিকিৎসকরা। ডা. অগ্নিমিতা গিরি সরকার জানিয়েছেন, স্তন ক্যানসারের কিছু উপসর্গ রয়েছে। সেগুলো সমন্ধে আমরা এখানকার বাসিন্দাদের সচেতন করতে চাই। কারণ আর পাঁচজন দ্বিধাহীনভাবে চিকিৎসকদের কাছে এলেও সমস্যা চেপেই থাকেন যৌনকর্মীরা। শেষ মুহূর্তে ডাক্তারের কাছে যখন তাঁরা আসেন তখন স্তন বাদ দেওয়া ছাড়া উপায় থাকে না। প্রথম স্টেজে ক্যানসার নির্ণয় করতে পারলে স্তন বাদ দেওয়ার ভয় নেই।

[আরও পড়ুন: মেডিক্যাল থেকে জীবনদায়ী ইঞ্জেকশন সরানো হয়েছিল ‘নিয়ম বহির্ভূতভাবে’, রিপোর্ট জোড়া তদন্ত কমিটির]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement