৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা আতঙ্ক কলকাতাতেও, আক্রান্ত সন্দেহে বেলেঘাটা আইডিতে ভরতি ৮ বিদেশফেরত

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 6, 2020 2:40 pm|    Updated: March 12, 2020 1:05 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কলকাতাতেও এবার করোনা আতঙ্ক। করোনা সংক্রমিত সন্দেহে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে নতুন করে ভরতি করা হল ৩ জনকে। সব মিলিয়ে বেলেঘাটা আইডিতে এখন করোনা সন্দেহে ভরতি রয়েছেন ৮ জন। তাঁরা জাপান, ইন্দোনেশিয়া, তাইল্যন্ড, সিঙ্গাপুর, দুবাই, কুয়েত ও বাংলাদেশ থেকে সম্প্রতি কলকাতায় ফিরেছেন। তারপরই তাঁদের শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা যায়। আপাতত ওই ৮ জনকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। ইতিমধ্যেই তাঁদের রক্তের নমুনা পাঠানো পুণের ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজিতে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে রিপোর্ট পজেটিভ এলে চিকিৎসা শুরু হবে।

সম্প্রতি কসবার এক মহিলা সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফিরেছিলেন। তাঁর দেহে করোনার উপসর্গ দেখা মেলে। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে ভরতি করা হয় বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। এছাড়া কুয়েত ফেরত টালিগঞ্জের এক যুবক ও থাইল্যান্ড ফেরত বেলেঘাটার এক যুবককের শরীরেও বাসা বেঁধেছে করোনা এই সন্দেহে তাঁদের বেলেঘাটা আইডিতে ভরতি করা হয়েছে। এই তিন জনেরই জ্বর ও সর্দি-কাশি হয়েছে। কোনও রকম ঝুঁকি না নিয়ে তাই তাঁদের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। এর আগে করোনা সন্দেহে আরও ৫ জন ভরতি ছিলেন বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। তাঁরা বাংলাদেশ, তাইল্যান্ড, দুবাই ও জাপান থেকে এদেশের এসেছিলেন। যদিও এই ৮ জনের শরীরে সত্যিই COVID-19 বাসা বেঁধেছে কিনা, তা এখনই বলা সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। কারণ তাঁদের রক্তের নমুনা পুণের ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজিতে পাঠানো হয়েছে। সেখান থেকে রিপোর্ট এখনও আসেনি। রিপোর্ট যদি পজেটিভ আসে, তবেই এই ৮ ব্যক্তি প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত কিনা তা বলা যাবে।

[ আরও পড়ুন: ‘বহিরাগত’দের পিঠে-বুকেই গালিগালাজ লেখা ছিল! দাবি রবীন্দ্রভারতীর উপাচার্যের ]

তবে করোনা মোকাবিলায় তৎপর রাজ্য সরকার। রাজ্যের সামগ্রিক পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে আজ বৈঠকে বসছেন মুখ্যমন্ত্রী। থাকবেন স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকরা। জেলাশাসক এবং সিএমওএইচরা বৈঠকে যোগ দেবেন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে। বিকেল সাড়ে তিনটে নাগাদ বৈঠকের সময় ধার্য করা হয়েছে। সূত্রের খবর, সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে কী কী নিয়ম নির্দিষ্ট করা যায় এবং ওষুধ জোগানের পরিস্থিতি কেমন, তা খতিয়ে দেখবেন মুখ্যমন্ত্রী। করোনার জেরে চিন থেকে ওষুধ আমদানির ক্ষেত্রে সমস্যা দেখা যেতে পারে কি না, সেক্ষেত্রে এখানে কতটা পরিমাণ ওষুধ মজুত রয়েছে, জেলার স্বাস্থ্যকর্তাদের কাছে সেসব জানতে চাইবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপরই ঠিক হতে পারে রাজ্যের তরফে বিশেষ নির্দেশিকা।

[ আরও পড়ুন: রাজ্যসভার ভোট, পঞ্চম আসনেও আগ্রহ দেখাচ্ছে তৃণমূল ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement