৫ ভাদ্র  ১৪২৬  শুক্রবার ২৩ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

অর্ণব আইচ: শহরে ফের একাকী বৃদ্ধের রহস্যমৃত্যু। এবার দক্ষিণ কলকাতার গলফ ক্লাব রোডে। মঙ্গলবার সকালে বাড়ি থেকে ওই বৃদ্ধকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয় বাসিন্দারা। হাসপাতালে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসক। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে যাদবপুর থানার পুলিশ।

[ আরও পড়ুন: ভালবাসায় ভাগ বসাচ্ছে একরত্তি, ২৫ দিনের শিশুকে খুনের চেষ্টা ‘বালিকা বধূ’র]

মৃতের নাম অনিল মালাকার। দক্ষিণ কলকাতার গলফ ক্লাবে চাকরি করতেন। থাকতেন গলফ ক্লাব রোডে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, অনিলবাবু বিয়ে করেননি, পরিবারেও আর কেউ ছিল না। বাড়িতে একাই থাকতেন তিনি। বয়সের সঙ্গে সুগার, প্রেসারের মতো একাধিক রোগ শরীরে বাসা বেঁধেছিল। কিন্তু মদের নেশা ছাড়তে পারেননি অনিল মালাকার। প্রতিদিনই মদ্যপান করতেন। সোমবার রাতে যথারীতি মদ্যপান করেছিলেন ওই বৃদ্ধ। মঙ্গলবার সকালে কোনও সাড়াশব্দ না পেয়ে অনিলবাবুর বাড়িতে যান পাড়া-প্রতিবেশীরা। তাঁদের দাবি, শোওয়ার ঘরে ঢুকে দেখেন, খাটের অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে রয়েছে অনিল মালাকার। তড়িঘড়ি তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় টালিগঞ্জের এম আর বাঙুর হাসপাতালে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। হাসপাতালে ওই বৃদ্ধকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

কিন্তু কীভাবে মারা গেলেন অনিল মালাকার? তা স্পষ্ট নয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্য, প্রেসার, সুগার-সহ একাধিক রোগে ভুগলেও, শয্যাশায়ী ছিলেন না। হেঁটে-চলে বেড়াতেন। এদিকে খবর পেয়ে বাঙুর হাসপাতালে যান যাদবপুর থানার পুলিশ। মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

দিন কয়েক আগে টালিগঞ্জের নেতাজিনগরে খুন হয়ে যান এক বৃদ্ধ দম্পতি। এর কয়েকদিন পরেই নেতাজিনগর থানারই বিদ্যাসাগর কলোনির একটি বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় এক বৃদ্ধের ঝুলন্ত দেহ। তিনিও বাড়িতে একাই থাকতেন। এবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল যাদবপুর থানা এলাকায় গলফ ক্লাব রোডে।

[আরও পড়ুন: বেহালায় নজিরবিহীন উৎসব, রক্তদানের আলোয় উজ্জ্বল দৃষ্টিহীনের বিয়ে]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং