BREAKING NEWS

৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২৫ নভেম্বর ২০২০ 

Advertisement

খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করে বাংলায় নির্বাচনী দামামা বাজিয়ে দিল কমিশন

Published by: Sulaya Singha |    Posted: November 18, 2020 9:06 pm|    Updated: November 18, 2020 9:09 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

শুভঙ্কর বসু: খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করে রাজ্যে নির্বাচনী দামামা বাজিয়ে দিল কমিশন। এরপর নভেম্বর ও ডিসেম্বর মাসজুড়ে চলবে তালিকায় সংযোজন-সংশোধনের কাজ। ১৫ জানুয়ারি প্রকাশিত হবে চূড়ান্ত ভোটার তালিকা। ওই তালিকার ভিত্তিতে ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচন হবে।

এবার পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে ভোটার তালিকা প্রস্তুতির কাজ চলছে। খসড়া তালিকা অনুযায়ী আপাতত রাজ্যে ভোটার সংখ্যা ৭ কোটি ১৮ লক্ষ ৪৯ হাজার ৩০৮। পুরুষ ভোটার ৩ কোটি ৬৭ লক্ষ ২ হাজার ৫৯০ জন ও মহিলা ভোটারের সংখ্যা ৩ কোটি ৫১ লক্ষ ৪৫ হাজার ২৮৮। সার্ভিস ভোটার রয়েছেন ১ লক্ষ ১২ হাজার ৪২৮ জন। তৃতীয় লিঙ্গের ভোটারের সংখ্যা ১৪৩০। খসড়া তালিকা প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গে কমিশনের পরিসংখ্যান অনুযায়ী তালিকায় প্রতিনিয়ত যে আপডেশনের কাজ চলেছে, তাতে মোট ১ লক্ষ ৩০ হাজার ৮৭৯ জন মৃত বা ভুয়ো কিংবা সন্দেহজনক ভোটারের নাম বাদ পড়েছে। তালিকায় যুক্ত হয়েছেন ৩৯ হাজার ১৭৬ জন ভোটার।

[আরও পড়ুন: সৌমিত্র ও তাঁর পরিবারকে নিয়ে কুরুচিকর পোস্ট, পুলিশের দ্বারস্থ ক্ষুব্ধ পৌলমী বসু]

খসড়া তালিকা প্রকাশের পর আপাতত যে সংযোজন ও সংশোধনীর কাজ চলবে সেজন্য রাজ্যের মোট ৭৮ হাজার ৯০৩টি বুথে সপ্তাহে দু’দিন বিশেষ ক্যাম্পের আয়োজন করেছে কমিশন। ২১, ২২, ২৮, ২৯ নভেম্বর এবং ৫, ৬, ১২ ও ১৩ ডিসেম্বর প্রতিটি বুথে উপস্থিত থাকবেন বুথ লেভেল অফিসার। সংযোজন, বিয়োজন ও সংশোধন সংক্রান্ত যে কোনও কাজ বুথে হাজির হয়ে করা যাবে। তালিকায় সংযোজন-বিয়োজনের পাশাপাশি বুথ পুনর্গঠনের প্রক্রিয়া চালিয়ে যাবে কমিশন। করোনা আবহে বিহার নির্বাচনকে মডেল ধরে কমিশনের সিদ্ধান্ত যেসব বুথে ভোটার সংখ্যা হাজার পেরিয়ে যাবে সেসব বুথ ভেঙে দেওয়া হবে। অর্থাৎ ধরেই নেওয়া যায় আসন্ন নির্বাচনে রাজ্যে বুথ সংখ্যা তুলনায় অনেকটাই বাড়তে চলেছে।

তালিকায় নাম তোলা ও ঠিকানা পরিবর্তনের জন্য ৬ নম্বর ফর্ম পূরণ করতে হবে। নাম বাদ দিতে ও সেই সংক্রান্ত কোন অভিযোগ থাকলে ৭ নম্বর ফর্ম পূরণ করতে হবে। নাম সংশোধন করার ক্ষেত্রে ৮ নম্বর ফর্ম প্রযোজ্য হবে। এছাড়াও এনআরআই ভোটার হিসেবে তালিকায় সংযুক্ত হতে চাইলে তাদের ক্ষেত্রে রয়েছে ৬(এ) ফর্ম। বিশেষ ক্যাম্প ছাড়াও সংশ্লিষ্ট জেলা নির্বাচনী সেলে উপস্থিত হয়ে সংশ্লিষ্ট ফর্ম পূরণ করে যে কোনও কাজ করা যাবে।

[আরও পড়ুন: ‘আদালতের নির্দেশ মেনে ছটপুজো করুন’, রাজ্যবাসীকে পরামর্শ মুখ্যমন্ত্রীর]

খসড়া তালিকা প্রকাশের আগে নির্বাচন কমিশনের রাজ্য অফিস তথা মুখ্য নির্বাচন আধিকারিকের দপ্তর থেকে যে সর্বদল বৈঠক ডাকা হয় সেখানে পরিযায়ী ইস্যু ও নদী ভাঙ্গনের ফলে ঠিকানা পরিবর্তনের বিষয়টি উঠে আসে। পাশাপাশি নির্ভুল তালিকা প্রকাশের দাবি জানিয়েছে শাসক-বিরোধী সব পক্ষই।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement