৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “আমি এক্সিট পোলের গুজবে বিশ্বাস করি না।” বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে এক্সিট পোল প্রকাশিত হতেই টুইট করে একথা জানালেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি অভিযোগ করেন, “আমি এক্সিট পোলের গুজবে বিশ্বাস করি না। আসলে এই গুজব ছড়ানোর ফাঁকে হাজার হাজার ইভিএম মেশিন বদলানোর চেষ্টা চলছে। এটাই আসলে নরেন্দ্র মোদির গেম প্ল্যান। আমি সমস্ত বিরোধীদের কাছে ঐক্যবদ্ধ, দৃঢ় ও সাহসী থাকার আবেদন করছি। আমরা একসঙ্গেই এই যুদ্ধে লড়াই করব। এই ষড়যন্ত্রের মোকাবিলা করব।”

[আরও পড়ুন-পুলিশি নিরাপত্তায় পরিবারকে এড়িয়ে বাড়ির পাশের বুথে ভোট দিলেন শোভনের]

নির্বাচন কমিশনের তরফে রবিবার সন্ধে সাড়ে ছটা পর্যন্ত এক্সিট পোল প্রকাশ করার উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। তাই শেষ দফার ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হতেই এক্সিট পোল প্রকাশ করে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম। যার মধ্যে বেশিরভাগই এনডিএ ক্ষমতায় ফিরছে বলেই জানায়। এমনকী পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ১২ থেকে ১৬টি আসন পাবে বলেও দাবি করে কেউ কেউ। এরপরই টুইট করেন তৃণমূল সুপ্রিমো। তাঁর কথায়, “কে কাকে ভোট দিয়েছে তা
এভাবে বলা যায় বলে আমি বিশ্বাস করি না। এটা আসলে স্ট্রংরুমে ইভিএম বদলানোর একটা চক্রান্ত। গুজব ছড়িয়ে মিথ্যেকে সত্যি বানানোর একটা প্রচেষ্টা। যাতে খুব সহজেই ইভিএম বদলে দেওয়া যায়। বিরোধীরা যাতে একজোট হতে না পারে তার চেষ্টা চলছে। তাই প্রত্যেককে বলব, সব জায়গায় একজোট হয়ে ইভিএম পাহারা দিন।”

[আরও পড়ুন- ভোট দিলেন না প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, অসুস্থতার আড়ালে ভিন্ন বিশ্লেষণ রাজনৈতিক মহলের]

আসলে ১৭তম লোকসভা ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশিত হওয়ার পরেই দেশজুড়ে বিজেপিকে হঠানোর ডাক দেন মমতা। রাজ্যের ৪২টি আসনে জয়লাভ করে তৃণমূলই দেশের সরকার গড়ার নির্ণায়ক শক্তি হবেন বলে দাবিও করেন। দেশজুড়ে বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলিকে সংগঠিত করা প্রক্রিয়াও শুরু হয় তাঁর নেতৃত্বে। গত ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেড ময়দানে সুবিশাল জনসভাও করেন। ভোট ঘোষণার পর থেকে টানা প্রায় দু’মাস রাজ্যজুড়ে প্রচুর জনসভা এবং রোড শোও করতে দেখা যায় তাঁকে। কিন্তু, তারপরও এক্সিট পোলে পশ্চিমবঙ্গ থেকে বিজেপিকে একাধিক আসনে জয়ী দেখানো হচ্ছে। বিষয়টিকে বিজেপি তথা মোদির চক্রান্ত বলেই অভিযোগ করছেন তিনি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং