BREAKING NEWS

২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

মিমির নামের পাশে নীল কালির চিহ্ন, ইভিএম কারচুপির অভিযোগ বিজেপির

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 19, 2019 4:27 pm|    Updated: May 19, 2019 4:27 pm

An Images

মণিশঙ্কর চৌধুরী ও তনুজিৎদাস: ইভিএমে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মিমি চক্রবর্তীর নামের পাশে নীল কালির চিহ্ন নিয়ে উত্তেজনা ছড়াল সোনারপুরের একটি ভোটগ্রহণ কেন্দ্রে। রবিবার, সপ্তম দফা নির্বাচনে ঘটনাটি ঘটেছে সোনারপুরের নতুন দিয়ারা অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২৮ নম্বর বুথে। এই নিয়ে নির্বাচন কমিশনের কাছে বুথের প্রিসাইডিং অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে চলেছেন বিজেপির যাদবপুর কেন্দ্রের প্রার্থী অনুপম হাজরা। এছাড়াও অনুপম হাজরা অভিযোগ করেন, বুথে তাঁদের এজেন্টকেও বসতে বাধা দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

রবিবার নির্বাচনের শুরু থেকেই শাসকদলের বিরুদ্ধে একের পর এক অভিযোগ তুলতে শুরু করেন অনুপম হাজরা। সকালে তিনি জানিয়েছিলেন, সাধারণ মানুষ যাতে বুথ পর্যন্ত পৌঁছাতে না পারে, তার চেষ্টা করছে তৃণমূল কংগ্রেস। ভাঙড়, বারুইপুর পশ্চিম, সোনারপুর উত্তর থেকে এই ধরনের অভিযোগ আসছে বলেও জানান তিনি। কিন্তু এবার তিনি যে অভিযোগ তুললেন তা গুরুতর। সোনারপুর নতুন দিয়ারা অবৈতনিক প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২৮ নম্বর বুথে তৃণমূল কংগ্রেস অবাধে ভোট করানোর চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেন যাদবপুরের বিজেপি প্রার্থী। এই বুথে যাদবপুরের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মিমি চক্রবর্তীর নামের পাশে নীল কালি দিয়ে দাগ দেওয়া রয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন তিনি। এরপর ওই বুথে গিয়ে সেই ঘটনা হাতেনাতে ধরেনও অনুপম হাজরা। সংবাদমাধ্যমকে দেখান সত্যিই চার নম্বর বোতামের পাশে রয়েছে একটি নীল কালির চিহ্ন। এই বোতামটি তৃণমূল কংগ্রেসের। স্বভাবতই এই বোতাম টিপলে ভোট যাবে তৃণমূলের ঘরে। অনুপমের অভিযোগ, বুথের বাইরে শাসকদলের প্রতিনিধিরা বলছেন, চার নম্বর বোতামে কালি লাগানো রয়েছে। ওটিতেই যেন ভোট দেন ভোটাররা। এটি নীতিবিরুদ্ধ।

[ আরও পড়ুন: উপনির্বাচনের ভাটপাড়ায় অশান্তি, উন্মত্ত জনতার হাতে আক্রান্ত মদন মিত্র ]

ঘটনায় ওই বুথের প্রিসাইডিং অফিসারের কাছেও অভিযোগ জানান যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরা। কেন মিমির নামের পাশে কালো কালির চিহ্ন রাখা হয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তিনি। জিজ্ঞাসা করেন, যদি খবর তিনি পেয়ে থাকেন তবে বুথের ভিতরে বসেও প্রিসাইডিং অফিসার এসব জানেন না, তা কী করে হয়? কিন্তু প্রিসাউডিং অফিসার বলেন, ইভিএম মেশিনের কাছে যাওয়ার অধিকার তাঁর নেই। তাই তিনি জানেন না মেশিনে কোথায় কালি লাগানো হয়েছে, আর কে বা কারা একাজ করেছে। ঘটনায় ক্ষুদ্ধ অনুপম। তিনি জানিয়েছেন ওই প্রিসাইডিং অফিসারের নামে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানাবেন তিনি।

[ আরও পড়ুন: সরাসরি বিজেপিকে ভোট দিতে বলছে কেন্দ্রীয় বাহিনী, অভিযোগ তৃণমূলের ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement