BREAKING NEWS

১৩ কার্তিক  ১৪২৭  শুক্রবার ৩০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বাংলার কোন জেলায় কত ধর্ষণ? তথ্য দিয়ে মমতাকে বিঁধলেন ধনকড়

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 6, 2020 10:33 pm|    Updated: October 7, 2020 4:04 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাংলার আইনশৃঙ্খলা নিয়ে ফের তোপ দাগলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় ( Governor Jagdeep Dhankhar)। তুলে ধরলেন প্রতি জেলার ধর্ষণ, অপহরণের পরিসংখ্যান। যদি বিন্দুমাত্র দেরি না করে সেই পরিসংখ্যানকে ভ্রান্ত বলে দাবি করল রাজ্য সরকারও। সমস্ত তথ্য যাচাই করা বলে দাবি করে পালটা টুইটে রাজ্যকে ক্ষমা চাইতে বললেন রাজ্যপাল। সবমিলিয়ে মঙ্গলবারও নবান্ন বনাম রাজভবনের লড়াই তুঙ্গে উঠল।

এদিন দুপুরে টুইটার হ্যান্ডেলে গত আগস্ট মাসে রাজ্যের কোন জেলায় কত সংখ্যক ধর্ষণ ও অপহরণের ঘটনা ঘটেছে, তা প্রকাশ করেন জগদীপ ধনকড়। ওই পরিসংখ্যানের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (CM Mamata Bannerjee) ট্যাগ করে লেখেন, “রাজ্যে ধর্ষণ ২২৩ ও অপহরণের ঘটনা ৬৩৯টি। পরিসংখ্যান বলছে রাজ্যে মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধের সংখ্যা ক্রমাগত বেড়ে চলেছে।” একইসঙ্গে রাজ্য ও কলকাতা পুলিশকে দ্রুত আইনশৃঙ্খলার দিকে নজর দিতেও বলেন।

[আরও পড়ুন : মণীশ শুক্লা হত্যাকাণ্ডে আটক নাসির খান, দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে CID]

এর কিছু পরেই রাজ্য স্বরাষ্ট্র দপ্তরের তরফে টুইট করে দাবি করা হয়, বাংলার ধর্ষণ ও অপহরণ নিয়ে যে ‘পরিসংখ্যান’ রাজভবনের তরফে প্রকাশ করা হয়েছে, তা কোনও সরকারি রিপোর্ট বা তথ্যের উপর ভিত্তি করে তৈরি হয়নি। অভিযোগগুলি ভিত্তিহীন এবং বিভ্রান্তিকর।”

[আরও পড়ুন : ‘ক্ষমতায় এসে সুদে-আসলে জবাব দেব’, শমীক ভট্টাচার্যের উপর হামলার নিন্দা করে হুমকি দিলীপের]

এরপর টুইটারে ফের সরব হন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। দাবি করেন, রাজ্য সরকারের জবাবে তিনি স্তম্ভিত। রাজ্যপালের দাবি, ধর্ষণ ও অপহরণ সংক্রান্ত প্রতিটি জেলা থেকে তিনি অফিসিয়াল রিপোর্ট পেয়েছেন। প্রতিটি তথ্য যাচাই করা হয়েছে। এই তথ্য অস্বীকার করার জন্য রাজ্য সরকারের ক্ষমাপ্রার্থনা ও ভুল স্বীকার করা উচিত বলে দাবি রাজ্যপালের।

তবে এই প্রথম নয়, এর আগে একাধিকবার রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে রাজ্যপাল রাজ্যের সমালোচনা করেছেন। রাজ্য ও কলকাতা পুলিশের শীর্ষ আধিকারিকদের ভর্ৎসনাও করেছেন। তবে এবার যেভাবে তথ্য-পরিসংখ্যান তুলে রাজ্যকে আক্রমণ করলেন, তা এক কথায় নজিরবিহীন। ইতিপূর্বে বাংলার কোনও রাজ্যপালকে এভাবে সরাসরি রাজ্যের বিরোধিতা করতে দেখা যায়নি বলেই দাবি। ওয়াকিবহাল মহল বলছেন, বিভিন্ন বিজেপিশাসিত রাজ্যের ধর্ষণ, মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে পথে নেমেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের এই পরিসংখ্যান তাঁকে পালটা চাপে ফেলতে পারে। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement