২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘দুয়ারে ভ্যাকসিন’ পৌঁছে দেওয়ায় কলকাতা পুরসভার হেল্থ অফিসারকে শোকজ

Published by: Sulaya Singha |    Posted: July 11, 2021 12:11 pm|    Updated: July 11, 2021 12:59 pm

Health Officer of KMC got show cause notice for corona vaccination campaign | Sangbad Pratidin

ছবি: প্রতীকী

কৃষ্ণকুমার দাস: ‘দুয়ারে ভ্যাকসিন’ পৌঁছে দেওয়ায় এবার সরকারি শোকজ নোটিস পেলেন কলকাতা পুরসভার (KMC) হেল্থ অফিসার। কারণ, স্বাস্থ্যদপ্তরের কোভিডবিধি মেনে ওই অভিযুক্ত সরকারি চিকিৎসক CVC (কোভিড ভ্যাকসিনেশন সেন্টার) কোড দিয়ে টিকাকরণ করাননি। শুধু তাই নয়, বহুতলের যে ঘরে ওই প্রবীণদের টিকাকরণ হয়েছে, সেখানে চিকিৎসক উপস্থিত ছিলেন না বলে অভিযোগ। যদিও ভ্যাকসিন দেওয়ার পর টিকা নেওয়া ব্যক্তিকে অন্তত আধঘণ্টা চিকিৎসকের পর্যবেক্ষণে থাকা বাধ্যতামূলক। কিন্তু ভবানীপুরের ৭০ নম্বর ওয়ার্ডে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ‘দুয়ারে ভ্যাকসিন’ দেওয়া হলেও দায়িত্বপ্রাপ্ত ওই চিকিৎসক যেমন সিভিসি কোড নেননি, তেমন নাগরিকদের ঘরে নজরদারিতেও ছিলেন না বলে পুরসভায় তদন্ত রিপোর্ট।

বস্তুত স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশ অমান্য করে বাড়ি বাড়ি টিকাকরণ করায় ওয়ার্ডের হেল্থ অফিসার ডাঃ ঈশিতা মণ্ডলকে শোকজ করা হয়েছে বলে স্বীকার করেছেন পুরসভার মুখ্যপ্রশাসক ও পরিবহণমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

[আরও পড়ুন: ফাইনালের ব্যর্থতায় কান্নায় ভেঙে পড়লেন নেইমার, সেলিব্রেশন ভুলে সান্ত্বনা দিলেন মেসি]

দেবাঞ্জনকাণ্ডের পর মহানগরে কোভিড টিকাকরণ (Corona Vaccination) কর্মসূচিতে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশাবলি অক্ষরে অক্ষরে পালনে পুরসভা যে অত্যন্ত কঠোর তা শনিবার স্পষ্ট করেছেন মুখ্যপ্রশাসক। শুধু তাই নয়, টিকা নিয়ে ওয়ার্ড কো-অর্ডিনেটরদের ‘ব্যক্তিগত ইচ্ছা ও উদ্যোগ’কে মান্যতা দেওয়া হবে না তাও জানিয়ে দিয়েছেন। শুরু হওয়া ‘দুয়ারে ভ্যাকসিন’ কর্মসূচি বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও জানান। তাঁর কথায়, “সরকারি ভ্যাকসিন, তাই সরকারের অনুমতি নিয়ে টিকাকরণ করতে হবে। যেখানে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে, সেই বাড়ির বাইরে সিভিসি কোড থাকা বাধ্যতামূলক।”

শোকজে ডাঃ মণ্ডলের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছে, কো-অর্ডিনেটর অসীম বসু স্বাস্থ্যকর্মীকে নিয়ে স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশ অমান্য করে বাড়ি বাড়ি গেলেও কেন হেল্থ অফিসার পুরসভার মুখ্যস্বাস্থ্য আধিকারিককে জানালেন না? ভবানীপুরের ৭০ নম্বর ওয়ার্ডে পর পর দু’দিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে দশজনকে টিকা দেওয়া হলে কোনও ক্ষেত্রে সিভিসি কোড হয়নি বলেও স্বীকার করেন ফিরহাদ। অবশ্য পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন পাওয়া গেলে শীঘ্রই সিভিসি কোড নিয়েই চলাচলে অক্ষমদের বাড়ি গিয়ে টিকাকরণ হতে পারে বলে জানান। এই বিতর্কের মধ্যেই ভবানীপুর ৭১ নম্বর ওয়ার্ডে কো-অর্ডিনেটর পাপিয়া সিং ফের ‘দুয়ারে ভ্যাকসিন’ কর্মসূচি নিয়ে পাড়ায় পাড়ায় ফ্লেক্স লাগিয়েছেন। বাড়ি বাড়ি টিকা দেওয়ার কর্মসূচিতে অটল কো-অর্ডিনেটরের স্বামী তথা ওয়ার্ড তৃণমূল সভাপতি বাবলু সিং জানান, “ভবানীপুরের টার্ফ রোডে সোমবার সকাল এগারোটা থেকে দুয়ারে ভ্যাকসিন চালু হবে।”

[আরও পড়ুন: জোড়াসাঁকো এলাকায় যুবকের গলায় কোপ, বচসার জেরেই খুন? তদন্তে পুলিশ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে