Advertisement
Advertisement

Breaking News

চিট ফান্ডের সমস্যা সমাধানে কড়া পদক্ষেপ হাই কোর্টের

এমপিএসের পাশাপাশি বর্তমানে হাই কোর্টে চিট ফান্ড সংক্রান্ত ১০০-র বেশি মামলা বকেয়া রয়েছে৷ সেগুলি নিয়ে পদক্ষেপের বিষয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, “চিট ফান্ডগুলি নিয়ে ধাপে ধাপে পদক্ষেপ করা হবে৷ এমপিএসকেই মডেল করা হবে৷”

high court is taking strong step to solve chit fund issue
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:June 17, 2016 1:38 pm
  • Updated:June 17, 2016 7:38 pm

স্টাফ রিপোর্টার: বাকি চিট ফান্ডের সমস্যা সমাধানে এমপিএস-ই মডেল৷ এই মডেলের সাফ্যল্যের উপরই নির্ভর করছে হাই কোর্টে বাকি চিট ফান্ডগুলির ভবিষ্যৎ৷ বৃহস্পতিবার এমপিএস মামলায় আরও একবার একথা জানিয়েছেন হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতি মঞ্জুলা চেল্লুর৷ এমপিএসের পাশাপাশি বর্তমানে হাই কোর্টে চিট ফান্ড সংক্রান্ত ১০০-র বেশি মামলা বকেয়া রয়েছে৷ সেগুলি নিয়ে পদক্ষেপের বিষয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, “চিট ফান্ডগুলি নিয়ে ধাপে ধাপে পদক্ষেপ করা হবে৷ এমপিএসকেই মডেল করা হবে৷”

আগামী বৃহস্পতিবার থেকে বকেয়া চিট ফান্ড মামলাগুলির লিস্টিং প্রক্রিয়া শুরু হবে৷ ইতিমধ্যেই এমপিএসের সম্পত্তির অঙ্ক যাচাই করতে শুরু করে দিয়েছে হাই কোর্ট নিযুক্ত অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শৈলেন্দ্রপ্রসাদ তালুকদারের নেতৃত্বাধীন এক সদস্যের কমিটি৷ এর আগে হিডকোর সঙ্গে এমপিএসের একটি চুক্তি হয়৷ সেই চুক্তি অনুযায়ী ২ কোটি ৪৬ লক্ষ টাকা মিটিয়ে দেওয়ার কথা হিডকোর৷ সেই টাকা সেবিকে ‘ইন্টারেস্ট আর্নিং অ্যাকাউন্টে’ জমা রাখতে নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট৷ সেবির বিরুদ্ধে অভিযোগ, হাই কোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও বকেয়া ২ কোটি ৪৬ হাজার টাকা ‘ইন্টারেস্ট আর্নিং অ্যাকাউন্টে’ রাখেনি তারা৷ এদিন বিচারপতি জানিয়ে দেন, অবিলম্বে সুদ সমেত ওই টাকা ‘ইন্টারেস্ট আর্নিং অ্যাকাউন্টে’ জমা করতে হবে সেবিকে৷

Advertisement

এছাড়াও এদিন প্রাক্তন জেলা বিচারক মহাদেব ঘোষকে তালুকদার কমিটির এজেন্ট নোডাল অফিসার নিযুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি৷ আমানতকারীদের টাকা ফেরতের লক্ষ্যে কয়েক দিন আগেই কাজ শুরু করেছে এক সদস্যের এই কমিটি৷ বর্তমানে এমপিএসের সম্পত্তির তথ্য যাচাইয়ের কাজ করছে কমিটি৷ আমানতকারীদের আইনজীবী অরিন্দম দাস জানিয়েছেন, ইতিমধ্যেই ঝাড়গ্রামে এমপিএসের মোট ১৫টি রিসর্ট রয়েছে৷ রয়েছে ফুড প্রসেসিং সেন্টার, অরগ্যানিক ফার্মিং৷ এছাড়াও গত ৩০ মে ও জুন মাসের প্রথম তিন দিন লেকটাউন, পাতিপুকুর, কৈখালি ও সল্টলেকে এমপিএসের সম্পত্তির তথ্য যাচাইয়ের কাজ করেছে কমিটি৷ ইতিমধ্যেই এমপিএসের একাধিক সম্পত্তি বেদখল হয়ে রয়েছে বলে কমিটি সূত্রে
খবর৷

Advertisement

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ